ব্রেকিং নিউজ

সকাল ১১:২৭ ঢাকা, মঙ্গলবার  ২৫শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান
নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান, ফাইল ফটো

‘বাংলাদেশে আইএস অথবা তালেবান নেই’

শ্রমিক, কর্মচারী, পেশাজীবী ও মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদ এবং আন্তর্জাতিক যুদ্বাপরাধ গণবিচার কমিটির আহ্বায়ক নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান বলেছেন, বাংলাদেশে আইএস অথবা তালেবানদের কোন অস্তিত্ব নেই।

তিনি বলেন, আইএস বা তালেবান জঙ্গিরা এ ভাবে মানুষ হত্যা করে না। তারা আত্মঘাতি হয়। কুড়োল বা তলোয়ার দিয়ে কোপান ও মানুষ হত্যা করা এটি জামায়াত-শিবিরের কাজ। এ কারণে স্বাধীনতা বিরোধী জামায়াত-শিবিরের বিরুদ্ধে লড়াই জোরদার করতে হবে।

মন্ত্রী আজ জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে শ্রমিক, কর্মচারী, পেশাজীবী ও মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদ এবং আন্তর্জাতিক যুদ্বাপরাধ গণবিচার কমিটির যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত জঙ্গী , সন্ত্রাস সাম্পদায়িকতা বিরোধী এক মানববন্ধন কর্মসূচিতে সভাপতির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ভাইস চেয়ারম্যান ইসমত কাদির গামা, আন্তর্জাতিক যুদ্বাপরাধ গণ বিচার কমিটির সদস্য সচিব ওসমান আলী, বিদ্যুত শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন মিয়া, চিত্র পরিচালক রোকেয়া প্রাচী প্রমূখ।

শাজাহান খান বলেন, আগামী ১৯ জুলাই থেকে বাংলাদেশে আমরা সাধারণ মানুষের সাথে জঙ্গী বিরোধী মত বিনিময় করবো। ঐদিন থেকে আমাদের কর্মসূচি শুরু হবে।

তিনি বলেন, যারা পবিত্র রোজা মানে না, যারা ঈদ মানে না তারা কিভাবে ইসলামকে রক্ষা করবে আমরা তা জানি না। রোজার সময় গুলশানে হামলা করে যারা ২৪ জন লোককে হত্যা করেছে তারা ইসলামের ধ্বংস চায়।

শাজাহান খান প্রশ্ন রেখে বলেন, ঈদ জামাতে ঈদের দিন যারা হামলা করে তাদেরকে আমরা মুসলমান বলবো?

তিনি বলেন, যারা হত্যাযজ্ঞ চালাচ্ছে তারা ্আল কায়দার নাম ব্যবহার করছে। আমরা বিভিন্ন দেশে দেখেছি আল কায়দা যখন মানুষ হত্যা করে তখন তারা আত্মঘাতী হয়। তারা আত্মঘাতী হয়ে মানুষ হত্যা করে। বাংলাদেশে যারা হত্যাকান্ড চালাচ্ছে তারা জামায়াত-শিবিরের মতো রগ কাটছে এবং কুপিয়ে মানুষ হত্যা করে। এ সমস্ত কাজ হচ্ছে জামায়াত-শিবিরের। এরা ধর্মের নামে ইসলামের নামে বেশাতি করছে।

শাজাহান খান বলেন, বেগম জিয়া ক্ষমতায় যাবার জন্য পাগল হয়ে গিয়েছে। বেগম জিয়া ও জামাত শেখ হাসিনাকে উৎখাত করে ক্ষমতায় যেতে চায়। বেগম জিয়ার সে স্বপ্ন সফল হবে না।

তিনি বলেন, যারা দেশে হত্যাকান্ড করছে এর দায় দায়িত্ব বেগম জিয়াকে নিতে হবে। ২০১৪-১৫ সালে বেগম জিয়ার হত্যাকান্ড মোকাবেলা করেছি বেগম জিয়ার জঙ্গি খেলাও মোকাবেলা করবো।