ব্রেকিং নিউজ

রাত ৯:৪২ ঢাকা, সোমবার  ২৪শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

বাঁশখালীর গণ্ডামারায় ‘পুলিশের গুলিতে’ নিহত ৩, নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে

চট্টগ্রামের উপজেলার গণ্ডামারায় কয়লা প্রকল্পবিরোধী সমাবেশে পুলিশের গুলিতে ৩ জন নিহত এবং ওসিসহ শতাধিক মানুষ আহত হয়েছেন। তবে নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে ধারণা করছে স্থানীয়রা।

সোমবার ভোরে পুলিশ গণ্ডামারায় অভিযান চালিয়ে ৭ জনকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে বিকেলে বসতভিটা রক্ষা কমিটির উদ্যোগে কয়লা প্রকল্পবিরোধী এলাকার লোকজন সমাবেশ আহ্বান করে। পুলিশ ওই সমাবেশে নিষেধাজ্ঞা এবং ১৪৪ ধারা জারি করে। পুলিশের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে লোকজন সমাবেশে জড়ো হতে চাইলে পুলিশ এলোপাতাড়ি রাবার বুলেট ও গুলি ছুড়ে। এ সময় পুলিশের গুলিতে ঘটনাস্থলেই ৩ জন নিহত এবং শতাধিক মানুষ আহত হয়েছে।

নিহতরা হলেন-গণ্ডমারা গ্রামের মৃত আশরাফ আলীর ছেলে মরতুজা আলী (৫২), তার ভাই আংকুর আলী (৪৫), একই এলাকার নুর আহমদের ছেলে জাকের আহমদ (৩৫)। এই ঘটনায় বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছে বলে পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে। ঘটনাস্থল গণ্ডামারা উপকূলীয় এলাকায় এখনো তীব্র উত্তেজনা বিরাজ করছে।

বাঁশখালী থানার ওসি স্বপন কুমার মজুমদার গণমাধ্যমকে জানান, একই স্থানে দুটি পক্ষ সমাবেশ আহ্বান করলে পুলিশ ১৪৪ ধারা জারি করে। কিন্তু কয়লা প্রকল্পেরবিরোধীরা পুলিশের ওপর হামলা চালালে পুলিশ পাল্টা পদক্ষেপ গ্রহণ করে।

স্থানীয় আবদুর রহমান, আবুল বশর, আলী নবী জানান, পুলিশ বিনা উস্কানীতে জনগণের ওপর গুলি চালিয়েছে। এতে ৩ জন নিহত এবং বেশ কয়েকজন নিখোঁজ রয়েছে। আহত হয়েছে শতাধিক মানুষ।

গত এক মাসেরও বেশি সময় ধরে বাঁশখালীতে কয়লাবিদ্যুৎ প্রকল্পের বিরুদ্ধে স্থানীয় জনগণ আন্দোলন করে আসছিল। তারা গণ্ডামারার মত জনবসতি এলাকায় কয়লাবিদ্যুৎ প্রকল্প না করতে প্রশাসনের কাছে দাবি জানিয়ে আসছিলেন। এলাকায় এনিয়ে আইনশংখলার অবনতি দেখা দিলে গত ২৩ মার্চ পুলিশের উদ্যোগে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হাবিবুর রহমান, ইউএনও শামসুজ্জামান ও ওসি স্বপন কুমার মজুমদারের উপস্থিতিতে গণ্ডামারা ইউনিয়নের সকাল বাজারে এক শান্তি সমাবেশের আয়োজন করা হয়। সমাবেশে ৩০ হাজারেরও বেশি মানুষ অংশ গ্রহণ করেন। ওই সমাবেশ থেকে স্থানীয় জনগন বাঁশখালীর লোকালয়ে কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প না করতে প্রশাসনের কাছে দাবি জানালে পুলিশ ও প্রশাসনের কর্মকর্তারা জনমত উপেক্ষা করে এখানে কয়লা প্রকল্প না করতে সরকারের ঊর্ধ্বতন মহলকে জানানো হবে বলে জনগনকে আশ্বস্থ করেছিলেন।