ব্রেকিং নিউজ

রাত ৮:৪৭ ঢাকা, রবিবার  ২৩শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

বর্তমান সরকার গণমাধ্যম এবং সাংবাদিক-বান্ধব : তথ্যমন্ত্রী

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, বর্তমান সরকার গণমাধ্যম এবং সাংবাদিক-বান্ধব। বর্তমানে দেশে দৈনিক, সাপ্তাহিক, পাক্ষিক, মাসিক, ত্রৈমাসিক ও ষান্মাষিক পত্রিকার সর্বমোট সংখ্যা ২ হাজার ৮১০টি। তিনি রোববার সংসদে সরকারি দলের সদস্য নুরুন্নবী চৌধুরীর এক প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন।

সরকারি দলের সদস্য মো. নজরুল ইসলাম বাবুর এক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার গণমাধ্যম এবং সাংবাদিক-বান্ধব। সরকারের বর্তমান মেয়াদসহ বিগত ২০০৯-১৩ মেয়াদে ৬৮৬টি পত্রিকার রেজিস্ট্রেশন প্রদান করেছে।
হাসানুল হক ইনু বলেন, বর্তমান সরকারের নির্বাচনী অঙ্গীকার অনুযায়ী তথ্যের অবাধ প্রবাহ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ৩১টি বেসরকারি স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেলসহ ২৪টি এফএম বেতার ও ৩২টি কমিউনিটি রেডিও’র লাইসেন্স প্রদান করা হয়েছে। সরকারি খাতে ৩টি টেলিভিশন চ্যানেল এবং বেসরকারি খাতে ২৩টি স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেল সম্প্রচার কার্যক্রম পরিচালনার পাশাপাশি ১৪টি এফ.এম বেতার এবং ১৫টি কমিউনিটি রেডিও সম্প্রচার কার্যক্রম পরিচালনা করছে।
সরকারি দলের সদস্য মো. আবুল কালামের এক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে অনলাইন পত্রিকার জন্য কোন নিবন্ধনের ব্যবস্থা নেই। তবে প্রস্তাবিত ‘অনলাইন গণমাধ্যম নীতিমালা, ২০১৫’তে এটা অন্তর্ভুক্ত করার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।
তিনি বলেন, বাংলাদেশকে একটি আধুনিক প্রযুক্তিনির্ভর ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। পাশাপাশি সরকার অবাধ তথ্য প্রবাহ নিশ্চিত করার বিষয়েও প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, তবে কোনো অনলাইন পত্রিকা অপসাংবাদিকতা করলে অথবা কোন ধরনের সাইবার অপরাধের সাথে যুক্ত থাকলে ‘তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (সংশোধন) আইন, ২০১৩’ অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা যাবে।