শীর্ষ মিডিয়া

ব্রেকিং নিউজ

রাত ৮:৫২ ঢাকা, মঙ্গলবার  ১৮ই ডিসেম্বর ২০১৮ ইং

ওবায়দুল কাদের
‘ক্রস বর্ডার রোড নেটওয়ার্ক ইম্প্রুভমেন্ট’ শীর্ষক প্রকল্পের পরামর্শক নিয়োগ সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান।

‘বর্তমান সরকারের আমলেই এশিয়ান হাইওয়ে’

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বর্তমান সরকারের আমলেই এশিয়ান হাইওয়ের কাজ সম্পন্ন হবে। সেই লক্ষ্যেই কার্যক্রম এগিয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘পদ্মা সেতুর পুরোপুরি সুবিধা কাজে লাগাতে হলে এশিয়ান হাইওয়ের মিসিং লিংক কালনা সেতুও নির্মাণ করতে হবে। এ সেতুটি নির্মিত হলে আর কোন মিসিং লিংক থাকবে না। ডিজাইনসহ অন্যান্য প্রস্তুতি অগ্রাধিকার ভিত্তিতে শেষ করে আগামী মার্চে কালনা সেতুর মূল কাজ শুরুর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।’

মন্ত্রী আজ সেতু ভবনে ‘ক্রস বর্ডার রোড নেটওয়ার্ক ইম্প্রুভমেন্ট’ শীর্ষক প্রকল্পের পরামর্শক নিয়োগ সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতা করছিলেন।

চুক্তিপত্রে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরে প্রধান প্রকৌশলী ইবনে আলম হাসান এবং পরামর্শক প্রতিষ্ঠানগুলোর লিড পার্টনার অরিয়েন্টাল কনসালটেন্টস গ্লোবাল কোম্পানি লিমিটেড এর দলনেতা আসুশী নিশিমুরা এবং মহাব্যবস্থাপক রুহি ঈশি নিজ নিজ পক্ষে সই করেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রকল্পের আওতায় জাপানের অর্থায়নে প্রায় আড়াই হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে মধুমতি নদীর উপর কালনা সেতুসহ দেশের অন্যান্য সড়কে ১৭টি সেতু, ৭টি কালভার্ট, ১টি টোল প্লাজা এবং ২টি এক্সেল লোড স্টেশন নির্মিত হবে।

তিনি বলেন, সতেরটি সেতুর মধ্যে বেনাপোল-মাদারীপুর সড়কে ৫টি সেতু, বারৈয়ারহাট-রামগড় সড়কে ৮টি সেতু এবং কক্সবাজার-চট্টগ্রাম সড়কে নির্মাণ করা হবে ৪টি সেতু। আড়াই হাজার কোটি টাকার এ প্রকল্পে জাপানে অর্থ সহায়তা থাকছে প্রায় ১ হাজার ৯’শ কোটি টাকা।

মন্ত্রী বলেন, ৪ কিলোমিটার দীর্ঘ সংযোগ সড়কসহ ৭’শ মিটার দীর্ঘ চারলেনের কালনা সেতু নির্মাণে প্রায় ৬৭২ কোটি টাকা ব্যয় হবে।
ক্রস বর্ডার রোড নেটওয়ার্ক ইম্প্রুভমেন্ট প্রকল্পের আওতায় প্রায় ২৩৬ কোটি টাকা চুক্তিমূল্যে নিযুক্ত পরামর্শক প্রতিষ্ঠানগুলো ১৭টি সেতু ও ৭টি কালভার্ট, ১টি টোলপ্লাজা এবং ২টি এক্সেল লোড কন্ট্রোল স্টেশনের নকশা তৈরি এবং নির্মাণকাজ তদারক করবে।

এছাড়া চুক্তি অনুযায়ী সহযোগী পরামর্শক হিসেবে কাজ করবে স্ম্যাক ইন্টারন্যাশনাল পিটিওয়াই লিমিটেড, জাপান ব্রিজ এন্ড স্ট্র্যাকচার ইন্সটিটিউট ইন-কর্পোরেশন, এসিই কনসালটেন্টস্ লিমিটেড, ডেভেলপমেন্ট ডিজাইন কনসালটেন্টস্ লিমিটেড এবং বিসিএল এসোসিয়েটস্ লিমিটেড।

এসময় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এমএএন ছিদ্দিক, সেতু বিভাগের সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম এবং ক্রস বর্ডার রোড নেটওয়ার্ক প্রকল্পের পরিচালক প্রকৌশলী মো. আহমেদুর রহমানসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ব্রিফিংকালে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমেরিকার নির্বাচনে যিনিই রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন, কিংবা যে সরকারই ক্ষমতায় আসুক, আমাদের সাথে তাদের যে সম্পর্ক তাতে কোন প্রভাব পড়বে না।

তিনি বলেন, আমেরিকার নির্বাচনে যারাই সরকার গঠন করুক বাংলাদেশের সাথে বিরাজমান বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের কোন পরিবর্তন হবে না।