ব্রেকিং নিউজ

রাত ২:৫২ ঢাকা, মঙ্গলবার  ২৫শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট
ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট, ফাইল ফটো

বর্তমান ইসি’র অধীনেই গ্রহণযোগ্য নির্বাচন সম্ভব

বর্তমান নির্বাচন কমিশনের (ইসি) অধীনেই অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন সম্ভব বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা ব্লুম বার্নিকাট।

আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) খান মো. নূরুল হুদার সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে বর্তমান কমিশনের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব কিনা? জানতে চাইলে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘আমি সবসময় একজন আশাবাদী মানুষ, আমি মনে করি এই কমিশনের অধীনেই অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন সম্ভব। বাংলাদেশে অতীতে সুষ্ঠু নির্বাচনের অনেক ইতিহাস রয়েছে। অতীতের নির্বাচনগুলোতে যদি কোন ভুলত্রুটি থেকে থাকে এগুলোকে সংশোধন করে সামনে ভাল নির্বাচন হবে। বাংলাদেশ এটা নিয়ে কাজ করছে বলে আমি আশাবাদী।’

গাজীপুর সিটি নির্বাচন নিয়ে তার বক্তব্যে কমিশনের সমালোচনা করা প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে বার্নিকাট বলেন, ‘এটাই গণতন্ত্রের সৌন্দর্য। যেকোনো আলোচনা-সমালোচনা গণতন্ত্রের সৌন্দর্য, সেটা সুষ্ঠুভাবে চলতে দেয়া উচিত। কথা বলা একজন মানুষের সাংবিধানিক অধিকার।’

জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে কোনো কথা হয়েছে কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মার্কিন রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘সব বিষয়ে কথা হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘আমরা সবসময়ই আশা করি স্থানীয় এবং জাতীয় সকল নির্বাচন সুষ্ঠু হবে। নির্বাচন কমিশন নির্বাচনগুলোতে সকল দলের সমান সুযোগ নিশ্চিত করবে বলে আমি আশাবাদী।’

নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে বৈঠক বিষয়ে বার্নিকাট বলেন, আমরা সবসময় গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে বিশ্বাসী। নির্বাচন কমিশনের সাথে এই বৈঠক নিয়মিত একটি বিষয়। বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে সবসময়ই যোগাযোগ রাখার চেস্টা করি।

পরে কমিশন সচিবালয়ের সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ এ বিষয়ে বলেন, মার্কিন রাষ্ট্রদূত আসন্ন তিন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের সার্বিক প্রস্তুতি সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন। কমিশন নির্বাচনের পরিস্থিতি সম্পর্কে তাকে অবহিত করেছে। তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন যে, আসন্ন তিন সিটি নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য হবে।

সচিব বলেন, কমিশন স্থানীয় নির্বাচনের পাশাপাশি আইন ও সংবিধান অনুযায়ী আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনেরও প্রস্তুতি নিচ্ছে, এ বিষয়টিও তাকে জানানো হয়েছে।