ব্রেকিং নিউজ

রাত ৯:০৩ ঢাকা, বুধবার  ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

বরিশালে শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশের লাঠিপেটায় আহতঃ২০,আটকঃ ১৪

বুধবার বেলা ১২টার দিকে বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সামনে নগরীর বান্দরোড এলাকায় ১০ দফা দাবি আদায়ে আন্দোলনরত ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজি (আইএইচটি) শিক্ষার্থীদের ওপর লাঠিপেটা করেছে পুলিশ। এতে দুই পুলিশ সদস্যসহ অন্তত ২০ শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে ১৪ শিক্ষার্থীকে আটক করেছে পুলিশ। আহতদের বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, ১০ দফা দাবি আদায়ে আইএইচটির শিক্ষার্থীরা বেলা ১২টার দিকে বান্দরোডে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। এক পর্যায়ে তারা সড়কে অবস্থান নিয়ে অবরোধ করার চেষ্টা করলে পুলিশ লাঠিপেটা শুরু করে। এ ঘটনায় শিক্ষার্থীরা ক্ষুব্ধ হয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়লে দুই পুলিশ সদস্য আহত হন। এর পর পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশ বেপরোয়া লাঠিপেটা করলে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে ধাওয়া- পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে পুলিশ সদস্যসহ অন্তত ২০ শিক্ষার্থী আহত হয়।

আহত শিক্ষার্থীরা জানায়, প্যারামেডিকেল শিক্ষা বোর্ডের পরিবর্তে বাংলাদেশ ডিপ্লোমা মেডিকেল শিক্ষা বোর্ড গঠন, ডব্লিউএইচও প্রদত্ত নীতিমালা অনুযায়ী নতুন নতুন পদ সৃষ্টি, স্থগিত হওয়া নিয়োগের আইনী জটিলতা নিরসন করে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু, ডিপ্লোমা মেডিকেল টেকনোলজিস্ট ও ফার্মাসিস্টদের দ্বিতীয় শ্রেণীর পদমর্যাদা  এবং বিএসসি ও এমএসসি কোর্স চালুসহ ১০ দফা দাবিতে বিক্ষোভ করে আসছেন তারা। এরই ধারাবাহিতকায় বুধবার তারা বান্দরোড এলাকায় শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ সমাবেশ করছিলেন। এ সময় পুলিশ তাদের ওপর অতর্কিত লাঠিপেটা শুরু করে। এতে ১৫-১৮ জন শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন।

আহত শিক্ষার্থী সোনিয়া আক্তার অভিযোগ করে বলেন, ‘পুরুষ পুলিশ কর্তৃক ছাত্রীদের মারধর করার ঘটনা পুরোপুরি নারী নির্যাতন। এ হামালার ঘটনায় জড়িত পুলিশ সদস্যদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।’

তবে মারধরের অভিযোগ অস্বীকার করে পুলিশ বলেছে, কোনো ছাত্রীকে মারধর করা হয়নি। রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ চালানোর সময় ধাওয়া দিলে তারা দৌড়াদৌড়ি করে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

এ ব্যাপারে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের জানায়, ‘এর আগেও গত সপ্তাহে একই দাবিতে তারা সড়ক অবরোধ করেছিল। তখন তাদের বুঝিয়ে-শুনিয়ে পাঠিয়ে দেয়া হয়। কিন্তু বুধবার পুলিশ তাদের বোঝাতে ব্যর্থ হয়। ফলে শিক্ষার্থীদের উত্তেজিত আচরণের কারণে আইনশৃঙ্খলা ও সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক রাখতে পুলিশ বাধ্য হয়েছেণা এ ঘটনায় শিক্ষার্থীদের  নিক্ষেপ করা ইটপাটকেলের আঘাতে দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। এছাড়া ১৪ শিক্ষার্থীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে ।