শীর্ষ মিডিয়া

ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৩:২৬ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ১৭ই জানুয়ারি ২০১৯ ইং

ড. কামাল হোসেন - বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ
ড. কামাল হোসেন - বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ

বঙ্গবন্ধু হত্যার পর ‘ড. কামাল’ কোথায় ছিলেন?

আওয়ামী লীগ উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য ও বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, ড. কামাল হোসেন অনেক অবাস্তব কথা বলেন। হঠাৎ করে ক্ষেপে যান। তিনি সাংবাদিকদের খামোশ বলেছেন। তার কোন নীতি না থাকার কারণে মানুষ তাকে ধিক্কার দিচ্ছে।

তিনি বলেন, ড. কামাল এখন স্বাধীনতা বিরোধী এবং বঙ্গবন্ধুর খুনীদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু হত্যার পর তিনি কোথায় ছিলেন, এই প্রশ্ন এখন উঠেছে। মানুষ তাকে এখন ঘৃণা করতে শুরু করেছে। তিনি যদি বিএনপিকে উদ্ধার করার চেষ্টা না করত তাহলে মানুষ তাকে অসম্মান করত না।

তোফায়েল আহমেদ আজ শনিবার সকালে শহরের সদর রোড এলাকায় নৌকা প্রতীকের নির্বাচনী প্রচার শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন।

তোফায়েল ভোলার বিভিন্ন উন্নয়ন চিত্র তুলে ধরে বলেন, ভোলা-চরফ্যাসন সড়ক ১৯৭২ সালে আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে করা হয়েছে। ভোলা থেকে ইলিশা-জংসন রাস্তা আমাদের করা। ভোলার রাস্তা-ঘাট-পুল-কালভার্ট যা প্রয়োজন ছিল ইতোমধ্যে সম্পন্ন করেছি। ভোলার প্রত্যেকটি গ্রাম এখন শহর। রাস্তা পাকা, ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ থাকায় মানুষ অনেক সুখে রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, বিএনপি-জাতীয় পার্টিও দেশে ক্ষমতায় ছিল, কিন্তু ভোলার উন্নয়ন করেনি। আমরাই প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ২ হাজার ২০০ কোটি টাকা ব্যায়ে এখানকার নদী ভাঙ্গন রোধ করেছি। তার কারণে নদী পাড়ের মানুষের মুখে হাঁসি ফুটেছে। আমি যখন সেখানে যাই, মানুষ আমাকে আনন্দে বুকে জড়িয়ে নেয়।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, গত ১০ বছরে ভোলার ৪টি সংসদীয় আসনে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। আসন্ন নির্বাচনে মানুষ তার মূল্যায়ন করবে। ইনশাল্লাহ আবারো আওয়ামী লীগ রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব লাভ করবে।

এসময় পৌরসভার মেয়র মো. মনিরুজ্জামান, জেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম নকিব, উপজেলা আওয়ামী লীগ সম্পাদক নজরুল ইসলাম গোলদার, পৌর আওয়ামী লীগ সম্পাদক আলী নেওয়াজ পলাশ, জেলা যুবলীগ সম্পাদক আতিকুর রহমান, ছাত্রলীগ সভাপতি ইব্রাহীম চৌধুরী পাপনসহ আওয়ামী লীগের বিভিন্ন সহযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।