Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৫:০৪ ঢাকা, সোমবার  ১৯শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

বঙ্গবন্ধুর মতো শেখ হাসিনাও ইসলামের জন্য কাজ করছেন

বঙ্গবন্ধুর মতো তার কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও ক্ষমতায় আসার পর ইসলামের জন্য কাজ করছেন, দেশকে এগিয়ে নিচ্ছেন।

শুক্রবার সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবে গণতান্ত্রিক ইসলামী ঐক্যজোট আয়োজিত ‘স্বাধীনতার আগে ও পরে বাংলাদেশে ধর্মীয় অঙ্গনের অবস্থান’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমাম এ কথা বলেন।

এইচটি ইমাম বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান ছিলেন একজন খাঁটি মুসলমান। তিনি ক্ষমতায় আসার পরই সোহরাওয়ার্দীতে ঘোড়ার রেস, ওয়াইন বন্ধ করেছিলেন। গড়েছিলেন ইসলামিক ফাউন্ডেশন। হজের জন্য জাহাজ এনেছিলেন।

বঙ্গবন্ধুর মতো তার কন্যা শেখ হাসিনাও ক্ষমতায় আসার পর ইসলামের জন্য কাজ করছেন জানিয়ে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর মতো পর্দানশীল মহিলা খুব কম দেখেছি। চলনে আচরণে, কথা-বার্তায় তিনি সাচ্চা মুসলমান।

শেখ হাসিনার সরকার ধর্মপ্রিয় বলেই বাংলাদেশে অনেক মসজিদ ও মাদ্রাসা স্থাপন করেছেন বলে মন্তব্য করেন এইচটি ইমাম।

তিনি আরও বলেন, মাদ্রাসা শিক্ষার্থীরা এখন প্রযুক্তি আর বিজ্ঞান শিক্ষা নিয়ে দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ করে নিচ্ছে। শুধু তাই নয়, বিসিএস পরীক্ষায়ও তারা ভালো করছে।

এইচটি ইমাম বলেন, শেখ হাসিনা বায়তুল মোকাররম দেখার মতো করে তৈরি করেছেন। ঢাকার বিভিন্ন মসজিদ সুদৃশ্য করে তৈরি হয়েছে। ক্যান্টনমেন্টের বড় মসজিদগুলোতে যান, এগুলো আগে কী ছিল? এখন ক্যান্টনমেন্টের চেহারা বদলে গেছে। যেমন সৈনিকদের বাসস্থানের ব্যবস্থা, তেমনি বাসার সামনে সুদৃশ্য বড় বড় মসজিদ।

বাংলাদেশের মানুষ অনেক বেশি খাঁটি মুসলমান দাবি করে প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা বলেন, আমরা পীর-মাশায়েখদের কথা শুনি। আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, আমরা অনেক বেশি ধর্মভীরু এবং অনেক বেশি খাঁটি মুসলমান।

এ সময় পাকিস্তানের অভিজ্ঞতার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমি দীর্ঘদিন পাকিস্তানে কাজ করেছি, দেখেছি পাকিস্তানে তারা রোজা রাখে ঠিকই কিন্তু ইফতারের সময় হলে পানি মুখে দিয়েই তারপরে হুইস্কি। এটা না হলে হয় না। এই হল তাদের ইসলাম।

ইসলাম শান্তির ধর্ম জানিয়ে  প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা ইমাম বলেন, তলোয়ারের আঘাতে ইসলাম প্রতিষ্ঠিত হয়নি। ইসলামের নামে যারা সহিংসতা ছড়ায়, তারা ইসলামের শত্রু, তারা ইসলামকে ধ্বংস করতে চায়।

বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে সিরিজ বোমা হামলার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, বেলজিয়ামের ঘটনায় ইসলামের সম্মান ক্ষুণ্ন হয়েছে। এখন পুরো ইউরোপে মুসলমানেরা বিপদের মুখে, হুমকির মুখে।

গণতান্ত্রিক ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা মাসউদুর রহমান বিক্রমপুরীর সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু, মাওলানা আবু সুফিয়ান জাকী, মো. নুরুল ইসলাম, মো. সোয়াইব মোল্লা, ইন্ডিয়া-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের সদস্য এমএ খালেক প্রমুখ।