Press "Enter" to skip to content

ফ্রান্সে বিজ্ঞাপনে ‘রুগ্ন চেহারার মডেল’ নিষিদ্ধ

ফ্রান্সে বিজ্ঞাপনে অতি শীর্ণকায় বা রুগ্ন চেহারার মডেল ব্যবহার নিষিদ্ধ করে নতুন যে আইন করা হয়েছে সেটি আজ থেকে কার্যকর হওয়া শুরু হয়েছে।

এর ফলে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা মানুষের শারীরিক উচ্চতা ও বয়স অনুসারে ওজনের যে সীমা নির্ধারণ করে দিয়েছে, মডেলদের ওজন যে সেই সীমার মধ্যে আছে, আজ শনিবার থেকে তাদেরকে এর ডাক্তারি প্রমাণপত্র বা সার্টিফিকেট জমা দিতে হবে।

শুধু তাই নয়, কম্পিউটারের মাধ্যমে ফটোতে ডিজিটালি কোন পরিবর্তন আনা হলে আগামী অক্টোবর মাস থেকে সেটা বিজ্ঞাপনে উল্লেখ করে দিতে হবে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলছে, বিজ্ঞাপানে শীর্ণকায় মডেল ব্যবহার করে সৌন্দর্যের এমন একটি ইমেজ তৈরি করা হয়েছে যা বাস্তবে হওয়া সম্ভব নয়।
সরকার বলছে, এই ধারণা এবং খাওয়া দাওয়ায় অনিয়ম বন্ধ করতেই এই আইনটি তৈরি করা হয়েছে।

নতুন আইন অনুসারে, কোন নিয়োগদাতা অর্থাৎ বিজ্ঞাপনী সংস্থা এই নিয়ম ভাঙলে তার ৭৫ হাজার ডলারেরও বেশি জরিমানা হবে। এবং তাদের ছ’মাসের জন্যে জেলও হতে পারে।

এর আগেও ফ্রান্সে এরকম একটি আইন করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিলো। সেখানেও শারীরিক উচ্চতা ও বয়স অনুসারে ওজন কতো সেটা উল্লেখ করার কথা বলা হয়েছিলো। তখন বিজ্ঞাপন সংস্থাগুলো এই উদ্যোগের প্রতিবাদ জানিয়েছিলো।

কিন্তু শেষ পর্যন্ত যে আইনটি পাস হলো সে অনুযায়ী ডাক্তাররা ঠিক করে দেবেন মডেলরা অতি রুগ্ন বা শীর্ণকায় কিনা। আর সেটা করা হবে তাদের ওজন, উচ্চতা এবং শারীরিক গঠনের কথা বিবেচনা করে।

স্বাস্থ্য ও সমাজ বিষয়ক ফরাসী মন্ত্রী বলেছেন, “অল্প বয়সী ছেলেমেয়েরা যখন এধরনের অবাস্তব শারীরিক সৌন্দর্য দেখতে পায় সেটা তাদের আত্মবিশ্বাসের ওপর আঘাত হানে। একই সাথে তাদের শারীরিক আচরণেরও ওপরেও তার প্রভাব পড়ে।”

ফ্রান্সের আগে স্পেন, ইসরায়েল এবং ইটালিতেও এধরনের আইন পাস হয়েছে। বিবিসি

Mission News Theme by Compete Themes.