Press "Enter" to skip to content

‘ফিলিস্তিনি যুবক’কে কেন তুর্কি পতাকায় দাফন?

২৭ বছর বয়সী ফিলিস্তিনি যুবক মোহাম্মদ বাদওয়ান। ইসরাইলের বিরুদ্ধে আন্দোলন-সংগ্রামে সামনের সারিতে থাকতেন তিনি। গত শুক্রবার ইসরাইলি সেনাদের গুলিত নিহত হয়েছেন মোহাম্মদ।

মোহাম্মদ বাদওয়ানের ইচ্ছা ছিল তিনি তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন। তুরস্কের প্রতি ভালবাসা থেকে তিনি সব সময় তুরস্কের পতাকা সঙ্গে রাখতেন।

কিন্তু এরদোগানের সঙ্গে সাক্ষাৎ তার ভাগ্যে মেলেনি। শুক্রবার ইসরাইলি সেনাদের গুলি তার বুকে বিদ্ধ হয়। ঘটনাস্থলেই নিহত হন তিনি। নিহত হওয়ার সময়ও তুর্কি পতাকা ছিল তার সঙ্গে। খবর ইয়ানি শাফাকের।

মোহাম্মদ মারা গেলেও তুরস্কের প্রতি তার ভালবাসাকে সম্মান জানিয়েছে তার পরিবার ও ফিলিস্তিনিরা। তুর্কি পতাকার রঙে রঙিন কাপড়ে তাকে দাফন করা হয়েছে।

মোহাম্মদের খালাত ভাই ইহাব বাদওয়ান জানিয়েছেন, শুক্রবার মোহাম্মদ গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন। প্রেসিডেন্ট এরদোগান এবং তুরস্কের প্রতি তার ভালবাসাকে আমরা সম্মান জানাতে তুরস্কের পতাকায় তাকে দাফন করেছি।

তিনি বলেন, মোহাম্মদ সব সময় বলতেন, এরদোগান ফিলিস্তিনিদের সমর্থন দেন। এরদোগান ফিলিস্তিনিদের প্রকৃত বন্ধ।

Mission News Theme by Compete Themes.