Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

ভোর ৫:১৯ ঢাকা, বুধবার  ১৪ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

ফিলিপাইন্সে টাইফুন
Reuters

ফিলিপাইন্সে টাইফুনে নিহত ২৮, আঘাত হেনেছে চীনেও

ফিলিপাইন্সে এরই মধ্যে ২৮ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে৷ ফিলিপাইন্সে ধ্বংসযজ্ঞ শেষে এবার সুপার টাইফুন মাংখুট আঘাত হেনেছে চীনে৷ হংকং ও ম্যাকাওয়ে এরই মধ্যে শুরু হয়েছে দুর্যোগ৷

দক্ষিণ চীন সাগরের দিকে এগোতে গিয়ে কিছুটা দুর্বল হয়ে পড়েছে মাংখুট৷ কিন্তু সতর্কতা হিসেবে হংকং কর্তৃপক্ষ সর্বোচ্চ বিপদসংকেত ১০ জারি করে রেখেছে৷

ফ্রিল্যান্সার সাংবাদিক জেমস রস জানিয়েছেন, হংকংয়ের ওপর দিয়ে ‘তীব্র বেগে বাতাস, প্রচণ্ড বৃষ্টি এবং ঝড় বয়ে যাচ্ছে৷ নিচু এলাকাগুলোতে ঝড়ের প্রভাবে বন্যা দেখা দিয়েছে, বিভিন্ন সড়ক-মহাসড়ক গাছ পড়ে বন্ধ হয়ে গেছে, বাড়িঘরের দরজা-জানালা ভেঙে পড়ছে বলেও জানিয়েছেন রস৷

কয়েক বছরের মধ্যে ভয়াবহ

রস জানান, গত ১৫ বছরের মধ্যে এটি তাঁর দেখা সবচেয়ে ভয়াবহ টাইফুন৷

স্থানীয় পত্রিকা সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট টুইটে লান্টাউ দ্বীপে ঝড়ের তাণ্ডবের কয়েকটি ভিডিও পোস্ট করেছে৷

@দ্যাটসশেনজেন নামের একটি ওয়েবসাইটের প্রধান সম্পাদক ম্যাট বোসনস শেনজেন হোটেলে জলোচ্ছ্বাসে বন্যার একটি ভিডিও টুইট করেছেন৷

হংকং আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর রোববারের প্রায় সব ফ্লাইট বাতিল করেছে৷ হাজার হাজার যাত্রী আটকা পড়েছেন বিমানবন্দরে৷

এদিকে, ম্যাকাওয়ে ৪২টি ক্যানো বন্ধ করে দেয়া হয়েছে৷ গত বছর টাইফুন হাতোর আঘাতে নয় জনের মৃত্যু হওয়ায় সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল ম্যাকাও কর্তৃপক্ষকে৷

চীনের অন্যান্য উপকূলীয় এলাকা থেকেও লাখ লাখ মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়া হয়েছে৷

শনিবার ফিলিপাইন্সের উত্তরে লুজোন দ্বীপ লণ্ডভণ্ড করে দিয়েছে সুপার টাইফুন মাংখুট৷ অন্তত ২৮ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে৷ এখনো বিভিন্ন স্থান বন্যাকবলিত, হচ্ছে ভূমিধস৷ কর্তৃপক্ষ বলছে, বেশিরভাগ মৃত্যুর ঘটনাই ঘটেছে পাহাড়ি এলাকায় ভূমিধসের কারণে৷

দেশটির দুর্যোগ মোকাবেলা দলের সমন্বয়ক ফ্রান্সিস টলেনটিনো ডিজেডএমএম রেডিওকে জানিয়েছেন, ‘‘টাইফুনের পরপরই অনেকে বাড়িঘরে ফিরতে শুরু করেন, তখনই ভূমিধসের ঘটনা ঘটে৷” এই ঝড়ে ৫৭ লাখ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন বলেও জানান তিনি৷

দেশটির প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুতার্তে রোববার আক্রান্ত এলাকার সবশেষ অবস্থা হেলিকপ্টারে পর্যবেক্ষণ করেছেন৷

শনিবার রাজধানী ম্যানিলা থেকে ৩৮২ কিলোমিটার উত্তরে বাগাও শহরে ঘণ্টায় ২০৫ কিলোমিটার বেগে আঘাত হানে মাংখুট৷

ফিলিপাইন্সে বছরে গড়ে ২০টি টাইফুন আঘাত হানে৷ বিশ্বের সবচেয়ে দুর্যোগপ্রবণ দেশ মনে করা হয় ফিলিপাইন্সকে৷ ২০১৩ সালে টাইফুন হাইয়ানের আঘাতে ৭৩০০ মানুষ প্রাণ হারিয়েছিল৷

যুক্তরাষ্ট্রে ঘূর্ণিঝড় ফ্লোরেন্সের আঘাত

এদিকে শুক্রবার নর্থ ক্যারোলাইনায় আঘাত হানার পর দুর্বল হয়ে পড়েছে ঘূর্ণিঝড় ফ্লোরেন্স৷ কিন্তু এরই মধ্যে তা কেড়ে নিয়েছে অন্তত ১৩ জনের প্রাণ৷

তীব্রতা কমে এলেও প্রবল বৃষ্টি অব্যাহত রয়েছে৷ কর্তৃপক্ষ সতর্ক করে দিয়েছে, বন্যা আরো বাড়তে পারে৷ ঘূর্ণিঝড়ের কেন্দ্র সাউথ ক্যারোলাইনার দিকে সরে গেলেও একাংশ এখনো রয়েছে নর্থ ক্যারোলাইনার ওপর৷ ফলে দুই রাজ্যেই বন্যা পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ হবে বলে আশঙ্কা কর্তৃপক্ষের৷ –ডয়চে ভেলে