ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৪:১৪ ঢাকা, মঙ্গলবার  ১৯শে জুন ২০১৮ ইং

প্রিয়া ফিরেছেন অভিনয়ে

প্রিয়া আমানের চোখ দুটি নাকি বেশ সুন্দর।কাছের মানুষেরা কতবার যে ঐ চোখ দুটির প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়েছেন তার ইয়ত্তা নেই। যদিও পুরুষেরা মেয়েদের প্রশংসা করতে গেলে হয় চোখ নয়তো মুখাবয়বকেই বেছে নেয়। তবে প্রিয়া আমান নাকি চোখের প্রশংসায় বেশি পেয়েছেন। আর সে চোখের সৌন্দর্য বাড়াতে চোখে লাগিয়েছিলেন কন্টাক্ট লেন্স।যতটা না নিজের গরজে তার চেয়ে বেশি অভিনয়ের প্রয়োজনে।

চরিত্রের প্রয়োজনেই একটি নাটকে চোখে কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার করার প্রয়োজন ছিলো তার। কিন্তু বিপত্তি ঘটলো এখানেই। ফার্মগেট থেকে সস্তায় কেনা কন্টাক্ট লেন্সটা ছিলো মেয়াদোত্তীর্ন। তাই যা ঘটবার তাই ঘটেছিলো ৩০ সেপ্টেম্বর। সেদিন কাওরান বাজার ইউটিসি ভবন থেকে শুটিং শেষ করে বিকেলে যখন বের হচ্ছিলেন তখন হঠাৎ চোখ ঝাপসা হয়ে আসতে থাকে। প্রচণ্ড ব্যাথায় জ্ঞান হারিয়ে পড়ে যান মাটিতে। সিএনজি খুঁজতে গিয়ে এই ঘটনা ঘটলে রাস্তায় দায়িত্বপালনরত পুলিশ অফিসার প্রিয়াকে হাসপাতালে পাঠান।

প্রিয়ার চোখ দেখে ডাক্তাররাও ভয় পেয়ে গিয়েছিলেন। কারণ কন্টাক্ট লেন্সের রাসায়নিক পদার্থ গলে আক্রান্ত করেছিলো চোখের কর্ণিয়া। বেশ কয়েকদিন পৃথিবীর আলো দেখতে পারেন নি তিনি। তবে আশার কথা প্রায় নষ্ট হয়ে যাওয়ার পথ থেকে রক্ষা পায় প্রিয়া আমানের চোখ। পৃথিবীর আলোয় আবারো নিজেকে আবিষ্কার করতে পেরে নিজেকে সবচেয়ে সুখী মানুষ ভাবছেন প্রিয়া আমান। আবারো সুন্দর দুটি চোখ নিয়ে হাজির হচ্ছেন ক্যামেরার সামনে।

প্রিয়া আমান বলেন, ‘বেশ কিছুদিন আগেই আমি অভিনয়ে ফিরেছি। খোদার কাছে শোকরিয়া যে তিনি আমার চোখকে ভালো করে দিয়েছেন। আর হ্যাঁ, এই দুর্ঘটনার পর আমিও সচেতন হয়ে উঠেছি। কোনো পণ্য কেনার আগে অন্তত যাচাই করেই কিনবো।’

তবে ক্যামেরার সামনে ফিরলেও আগে চুক্তি হওয়া ধারাবাহিক নাটকগুলোর জন্যই সময় দিচ্ছেন। এক ঘণ্টার নাটকগুলো করতে পারছেন না কারণ টানা কাজ করলে চোখে সমস্যা হয়।

প্রিয়া যে ধারাবাহিকগুলোর কাজ করছেন সেগুলো হলো কায়সার আহমেদের ‘ইয়েস ম্যাডাম নো স্যার’, সবুর খানের ‘দাগ’, অঞ্জন আইচের ‘তিরন্দাজ’, ‘মেঘের পরে মেঘ জমেছে’, মোহন খানের ‘নীড় খোঁজে গাংচিল’, আহমেদ আজিম টিটোর ‘স্বপ্নবিলাস’।

এদিকে গত বছর মুক্তি পেয়েছিলো প্রিয়া আমান অভিনীত চলচ্চিত্র ‘অদৃশ্য শত্রু’। এটি পরিচালনা করেন মাশরুর পারভেজ। সম্প্রতি আরও কিছু চলচ্চিত্রে অভিনয়ের কথা চলছে তার।