ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৫:২৩ ঢাকা, শুক্রবার  ২১শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

আনিসুল হক
আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, ফাইল ফটো

প্রধান বিচারপতির আহবানকে অবজ্ঞার অভিযোগ আইনমন্ত্রীর নাকচ

আইন মন্ত্রী অনিসুল হক আজ প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার আহবান অবজ্ঞা করার অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছেন।
প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা বিচার বিভাগের জন্য একটি পৃথক সচিবালয় প্রতিষ্ঠা করতে আইন মন্ত্রনালয়ের প্রতি আহবান জানান। আইন মন্ত্রনালয় এ আহবানে তেমন মনযোগ দিচ্ছে না বলে হাইকোর্টের এক বিচারপতি অভিযোগ করেন। অভিযোগের জবাবে মন্ত্রী আজ এক প্রতিক্রিয়ায় এ কথা বলেন।

আইন মন্ত্রী আজ তাঁর কার্যালয়ে যুদ্ধাপরাধীদের সম্পত্তি এবং অন্যান্য ইস্যুতে সরকারের অভিমত সম্পর্কে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে এক পযার্য়ে বলেন, বিচার বিভাগের জন্য একটি পৃথক সচিবালয় প্রতিষ্ঠা করা আমাদের (আইন মন্ত্রণালয়) এখতিয়ারের মধ্যে পড়ে না। তিনি বলেন, আমরা এটি করতে পারি না। তিনি বলেন, বিচার বিভাগের জন্য পৃথক সচিবালয় প্রতিষ্ঠা করার প্রস্তাব মন্ত্রিসভায় অনুমোদিত হতে হবে এবং সংসদে পাস হতে হবে।

হাইকোর্ট ডিভিশনের সিনিয়র জজ বিচারপতি সৈয়দ মুহম্মদ দস্তোগীর হুসাইন এর গত ৫ সেপ্টেম্বর সুপ্রিম কোর্ট বার এসোসিয়েশন মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে অভিযোগ করে বলেন, বিচার বিভাগের জন্য একটি পৃথক সচিবালয় প্রতিষ্ঠা করতে প্রধান বিচারপতির আহবানে আইন মন্ত্রনালয় তেমন কোন সাড়া দেয়নি।

আইন মন্ত্রী হক বলেন, বিচারপতি দস্তোগীর একজন খুবই সম্মানিত ব্যক্তি এবং আমি তাকে খুব সম্মান করি। তবে তিনি সে দিন যে বক্তব্য দিয়েছেন, আমি তার কাছ থেকে এমন বক্তব্য আশা করিনি। তাঁর বক্তব্য আমাকে ব্যাথিত করেছে। তিনি বলেন, বিচারপতির এ বক্তব্য সংবাপত্রে এসেছে। আমি মনে করি, তার এ বক্তব্যের ব্যাখ্যা দেয়া উচিৎ।

আইন মন্ত্রী বলেন, আমি এ বিষয়টি পরিষ্কার করতে চাই, যে আমি কারো বিরুদ্ধে কোন ধরনের অভিযোগ করছি না, আমি এ বিষয়টি শুধু পরিষ্কা করতে চাই, যাতে এ নিয়ে জনগণের মধ্যে কোন ধরনের সন্দেহ সৃষ্টি না হয়।

তিনি বলেন, বিচার বিভাগ যাতে সম্পূর্ণ স্বাধীন ও নিরপেক্ষভাবে কাজ করতে পারে, এ জন্য আমরা আইন মন্ত্রণালয় থেকে বিচার বিভাগকে সব ধরনের সহায়তা দিয়ে আসছি। অন্য কোন সরকার বিচার বিভাগকে এতোটা স্বাধীনতা দেয়নি।

আইন মন্ত্রী আরো বলেন, একটি ধারাবাহিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে বিচার বিভাগের স্বাধীনতা পযার্য়ক্রমে বৃদ্ধি পাচ্ছে।

তিনি বলেন, বিচার বিভাগ আমাদেরকে অনেক কিছু দিয়েছে। ফলে আমরা বিচার বিভাগের স্বাধীনতায় দৃঢ়ভাবে বিশ্বাসী এবং এই স্বাধীনতা রক্ষা করার জন্য যা কিছু প্রয়োজন, আমরা তা করব।