Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ৯:৩৭ ঢাকা, বুধবার  ১৪ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী স্মার্ট আইডি কার্ড বিতরণ উদ্বোধন করলেন

মেশিন রিড্যাবল ন্যাশনাল আইডেন্টি (এনআইডি) কার্ড বিতরণের মাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশের অগ্রযাত্রায় আরো একটি মাইলফলক স্থাপিত হলো।

বিদ্যমান পেপার লেমিনেটেড কার্ডের স্থলে ১০ কোটি মানুষের মাঝে বহু প্রতিক্ষিত এই উন্নত এনআইডি কার্ড বিতরণ করবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

 প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ সকালে ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এনআইডি কার্ড বিতরণ উদ্বোধন করেন।
প্রধানমন্ত্রী প্রথমে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী রকিবউদ্দিন আহমেদের কাছে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের এনআইডি কার্ড হস্তান্তর করে আনুষ্ঠানিভাবে এই কার্ড বিতরণের উদ্বোধন করেন।

এরপর সিইসি প্রধানমন্ত্রীর কাছে এনআইডি কার্ড হস্তান্তর করেন।

পরে প্রধানমন্ত্রী,এনআইডি কার্ডের ব্রান্ড এ্যাম্বাসেডর মাশরাফি বিন মর্তুজা ও অল-রাউন্ডার সাবিক আল হাসানসহ জাতীয় ক্রিকেট দলের সদস্যদের মাঝে স্মার্ট কার্ড বিতরণ করেন।

অনুষ্ঠানে বিশ্ব ব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর কিমিয়াও ফান বক্তৃতা করেন। এতে এনআইডি কার্ডের উপর সংক্ষিপ্ত উপস্থাপনা করেন আইডেন্টিফিকেশন সিস্টেম ফর এ্যানহেনসিং এ্যাকসেস টু সার্ভিসেস’র প্রকল্প পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সুলতানুজ্জামান মো. সালেহ উদ্দিন।

মন্ত্রীবর্গ, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টাগণ, জাতীয় সংসদ সদস্যবৃন্দ, বিদেশী কূটনৈতিক, সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও কমিশনারগণ, সুশীল সমাজের সদস্য, জাতীয় ক্রিকেট দলের সদস্য এবং পদস্থ বেসামরিক ও সামরিক কর্মকর্তাগণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।
মেশিন রিড্যাবল হচ্ছে স্মার্ট কার্ড জালিয়াতির বিরুদ্ধে অতিরিক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

এই কার্ড আগামীকাল থেকে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন ও সদ্য অন্তর্ভুক্ত কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ি উপজেলার দাশিয়ারচর সিটমহলে বিতরণ করা হবে। পরবর্তীতে পর্যায়ক্রমে উপজেলা, পৌরসভা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে স্মার্ট কার্ড বিতরণ করা হবে।

ইসি কর্মকর্তারা জানান, দেশে বর্তমান ভোটার সংখ্যা প্রায় ১০ কোটি। ৮ বছর আগে প্রথমবারের মতো মোট ৮ কোটি ১০ লাখ ৫৮ হাজার ৬৯৮ জন নাগরিক লেমিনেটেড এনআইডি কার্ড পেয়েছেন। কিন্তু এ কার্ড নিয়ে কিছু অসাধু ব্যক্তি জালিয়াতি করেছে। মেশিন রিড্যাবল স্মার্ট কার্ডে এই জালিয়াতি বন্ধ হবে।

এর নিরাপত্তায় ২৫ ধরনের আন্তর্জাতিক সার্টিফিকেশন ও স্টান্ডার্ড নিশ্চিত করা হয়েছে।

এতে একজন নাগরিকের সব ধরনের তথ্য থাকবে। কার্ডধারীরা ব্যাংকিং, টিআইএন, ড্রাইভিং লাইসেন্স ও পাসপোর্টসহ ২২ ধরনের সেবা পাবে।

এই স্মার্ট কার্ডে ৩ স্তরে আন্তর্জাতিক মান ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে। পাঁচ স্তরে শতভাগ পলিকার্বোনেট উপাদান রয়েছে, যা কমপক্ষে ১০ বছর থাকবে। লেজারের মাধ্যমে ব্যক্তিগত তথ্য প্রদর্শিত হয়েছে, যা সাধারণ মুদ্রনযন্ত্রে সম্ভব নয়। এছাড়া রয়েছে স্বচ্ছ হলোগ্রাম।

এতে আন্তর্জাতিক সিভিল এভিয়েশন অর্গানাইজেশনের চাহিদার ভিত্তিতে বিভিন্ন তথ্য সংযুক্ত রয়েছে।

ইসি’র একজন কর্মকর্তা বলেন, এনআইডি কার্ড বিনামূল্যে দেয়া হবে। তবে, হারিয়ে গেলে নতুন একটি নিতে চাইলে নির্দিষ্ট অংকের ফি দিতে হবে।