ব্রেকিং নিউজ

রাত ১১:১৪ ঢাকা, বুধবার  ১৯শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

‘প্রধানমন্ত্রী সম্পর্কে কোন ভাষায় কথা বলতে হয় সে শিক্ষা খালেদার নেই’

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক সাবেক পরিবেশমন্ত্রী ড.হাছান মাহমুদ বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার কড়া সমালোচনা করে বলেছেন, তিনি(খালেদা জিয়া) শিষ্টাচার ও ভদ্রতা জানেন না। দেশের প্রধানমন্ত্রী সম্পর্কে কিভাবে, কোন ভাষায় কথা বলতে হয় এ শিক্ষা খালেদা জিয়ার কাছে নেই। তিনি যেভাবে প্রধানমন্ত্রীকে নাম ধরে সম্বোধন করেন তাতে মনে হয় প্রধানমন্ত্রী উনার বোন। খালেদা জিয়া আপনাকে স্মরণ করিয়ে দিতে চাই, শেখ হাসিনা আপনার বোন নয় উনি দেশের প্রধানমন্ত্রী। আপনি এভাবে দেশের প্রধানমন্ত্রীর নাম ধরে সম্বোধন করতে পারেন না।

খালেদা জিয়ার উদ্দেশ্যে হাছান মাহমুদ বলেন, ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের পূর্বে প্রধানমন্ত্রী যখন আপনাকে সর্বদলীয় সরকার গঠনের জন্য আহবান জানিয়েছিল তখন আপনি যে ভাষায় কথা বলেছিলেন তখনই দেশের জনগণ আপনার শালীনতা,শিষ্টাচার ও নম্রতা-ভদ্রতা সম্পর্কে জেনে গেছে।শেখ হাসিনা শুধু দেশের প্রধানমন্ত্রীই নন তিনি জাতির জনকের কণ্যা, তিনবারের নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী, ৩৩ টি আন্তর্জাতিক পুরস্কারে তিনি ভূষিত হয়েছেন, পরিবেশ সংরক্ষণে তিনি জাতিসংঘের সর্বোচ্চ পুরস্কার চ্যাম্পিয়ন অফ দ্যা আর্থ পেয়েছেন। সুতরাং বিএনপি চেয়ারপার্সন আপনাকে বলবো মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সম্পর্কে মন্তব্য করার আগে শিষ্টাচার ও ভদ্রতার শিক্ষা নিন।

বুধবার সকালে জামায়াতের ডাকা হরতালের প্রতিবাদে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে রমনা থানা আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক সমাবেশে হাছান মাহমুদ এ সকল মন্তব্য করেন।

জামায়াতের ডাকা হরতালের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে হাছান মাহমুদ বলেন, মীর কাসেম আলীর রায় সরকার কিংবা আওয়ামী লীগ দেয়নি। রায় দিয়েছে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। সুতরাং দেশের সর্বোচ্চ আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে এ হরতাল মানে আদালত অবমাননা, আদালতের রায়কে না মানা। দেশের বিচারপতি সম্পর্কে মন্তব্য করার কারণে যদি সরকারের দু’জন মন্ত্রীকে আদালত অবমাননার অভিযোগে আদালতে তলব করা হয় তাহলে রায়ের বিরুদ্ধে আজকের এ হরতাল সর্বোচ্চ আদালতকে চরম অবমাননা করা। যারা এ হরতাল ডেকেছে তাদের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার দায়ে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হোক।

বিএনপি চোরাপথে কাউন্সিলের পূর্বেই নেতৃত্ব নির্বাচিত করেছে এমন মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের এ নেতা আরো বলেন, খালেদা জিয়া যেখানে তার স্বামী বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ভাইকে ধরে রাখতে পারেন নি (জিয়াউর রহমানের ভাই ঘোষণা দিয়েছেন তিনি নতুন দল গঠন করবেন), সেখানে কিভাবে বেগম জিয়া দেশের জনগণকে তার সাথে রাখবেন?

এডভোকেট আব্দুল হামিদ খানের সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, হেদায়েতুল ইসলাম স্বপন, হাসিবুর রহমান মানিক, এম এ করিম,ফজলুল হক প্রমুখ।