Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ১১:২৩ ঢাকা, সোমবার  ১৯শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

প্রধানমন্ত্রী মঙ্গলবার নেদারল্যান্ড যাচ্ছেন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তিনদিনের এক সরকারি সফরে আগামীকাল মঙ্গলবার আমস্টার্ডামের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়ছেন। ডাচ প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুটের আমন্ত্রণে তিনি এ সফরে যাচ্ছেন।
প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর সফরসঙ্গীদের নিয়ে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইট সকাল আটটায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছেড়ে যাবে বলে কথা রয়েছে।
ফ্লাইটটি নেদারল্যান্ডের স্থানীয় সময় রাত নয়টায় ডাচ রাজধানীর আমস্টার্ডম স্কিফল এয়ারপোর্ট সেন্টারে পৌঁছাতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে। আমস্টার্ডামে যাওয়ার সময় প্রধানমন্ত্রী আবুধাবিতে পাঁচ ঘন্টা যাত্রা বিরতি করবেন।
আমস্টার্ডাম স্কিফল এয়ারপোর্ট সেন্টারে উষ্ণ অভিনন্দন জানানোর পর প্রধানমন্ত্রীকে বর্ণাঢ্য মোটর শোভাযাত্রা সহকারে নেদারল্যান্ডের প্রশাসনিক রাজধানী দি হেগের গ্র্যান্ড হোটেল আমরাথ কুরহাউসে নিয়ে যাওয়া হবে। এ সফরকালে তিনি ওই হোটেলেই অবস্থান করবেন।
সফর চলাকালে প্রধানমন্ত্রী আগামী ৪ নভেম্বর সরকারি বাসভবন ‘ক্যাটশুইজে’ ডাচ প্রধানমন্ত্রীর মার্ক রুটের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করবেন। বৈঠকের পর দ্বিপাক্ষিক দলিল স্বাক্ষরিত হবে।
পরে, শেখ হাসিনা তাঁর সম্মানে মার্ক রুট আয়োজিত এক নৈশভোজ সভায় যোগ দেবেন।

এর আগে ৪ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী নেদারল্যান্ডের রানী ম্যাক্সিমার সঙ্গে তাঁর রাজপ্রাসাদে সাক্ষাৎ করবেন।
এ ছাড়া ডাচ বৈদেশিক বাণিজ্য ও উন্নয়ন সহযোগী মন্ত্রী লিলিয়ান প্লাউমেন এবং পূর্ত ও পরিবেশ মন্ত্রী মিলানি সল্টেজ প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কুরহাওজ হোটেলে সাক্ষাৎ করবেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ডাচ মন্ত্রীবর্গের সঙ্গে ‘ডেলটা প্লান ২১০০’ শীর্ষক আলোচনায় অংশগ্রহণের পর মধ্যাহ্নভোজে যোগ দেবেন।
প্রধানমন্ত্রী ৫ নভেম্বর হোটেল কুরহাওজ হোটেলে একটি ব্যবসায়িক সেমিনারে যোগ দেবেন।
তিনি কোরনেস্ট্রা এন্ড কোং নামক একটি ফল ও সবজি ব্যবসায়ি প্রতিষ্ঠান প্ররিদর্শনে যাবেন। প্রতিষ্ঠানটি টমেটো জগতের চাষী এবং আমদানীকারকদের কাছে বিখ্যাত। এটি গ্রিন হাউজ পদ্ধতির মাধ্যমে সারা বছরব্যাপী প্রায় ৫০ ধরনের টমেটো উৎপাদন করে।
শেখ হাসিনা কুরহাওজ হোটেলে নেদারল্যান্ডে অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশী কমিউনিটির একটি সংবর্ধনায় যোগ দেবেন।
প্রধানমন্ত্রী ৫ নভেম্বর আর্মস্টার্ডাম থেকে দেশের উদ্দেশে রওয়ানা দেবেন। সফর শেষে তিনি আবুধাবি হয়ে ঢাকায় হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে ৬ নভেম্বর সন্ধ্যা ৬ টায় পৌঁছাবেন।
রোববার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মাধ্যমে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী জানান, প্রধানমন্ত্রীর নেদারল্যান্ড সফরে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার মাধ্যমে বাংলাদেশ ডেল্টা প্ল্যান বাস্তবায়ন এবং বঙ্গোপসাগরে সমুদ্রসীমা পুনরুদ্ধারের ওপর আলোকপাত করা হবে।
আলী বলেন, ‘তাঁর এই সফরের মাধ্যমে দ্বিপাক্ষীক সম্পর্কে এবং বিশ্বব্যাপী বাংলাদেশের ভাবমুর্তি উজ্জ্বল হওয়ার ক্ষেত্রে নতুন মাত্রা লাভ করবে।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর এই সফরের প্রধান উদ্দেশ্য হলো মানবসম্পদ উন্নয়নে প্রযুক্তিগত সহযোগিতা, তৈরি পোশাক, শিক্ষা এবং কৃষি ক্ষেত্রে বিদ্যমান দ্বিপাক্ষীক সম্পর্কের বিস্তার এবং শক্তিশালী করা।
এ সফরে দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর পৃথক বৈঠকে চারটি নিয়মিত রাজনৈতিক আলোচনার সমঝোতা স্মারক, পররাষ্ট্র সার্ভিসের একাডেমিক ট্রেনিং এবং বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে সহযোগিতা চুক্তির স্বাক্ষর হবে বলে আশা করা হচ্ছে।
আলী বলেন, বৈঠকে ডেল্টা এলাকায় পানি সম্পদের ব্যবস্থাপনা, জলবায়ু পরিবর্তন এবং সীমানা পুনরুদ্ধার, বৃষ্টির পানি সংরক্ষণ এবং খাদ্য নিয়ন্ত্রণ বিষয়ক আলোচনা অগ্রাধিকার পাবে।
তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী সফরের সময় রোটারডেম পোর্ট এবং সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন ডাচ প্রকল্প পরিদর্শন করেবেন এবং প্রকল্প সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গের কাছ থেকে সংক্ষিপ্ত তথ্য জানবেন।
নেদারল্যান্ড কর্তৃপক্ষ তৈরি পোশাকের ডিজাইন, মার্কেটিং এবং ব্রান্ডিংয়ের মাধ্যমে প্রধান রপ্তানি পণ্যের উচ্চ মূল্য বজায় রাখতে সহযোগিতা করবে।
মাহমুদ আলী বলেন, প্রধানমন্ত্রী পররাষ্ট্রমন্ত্রী, পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রীসহ ২৫ সদস্যের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেবেন।
তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী নেদারল্যান্ডে বাংলাদেশের ব্যবসার বিকাশে আগ্রহী। তাঁর সঙ্গে এই সফরে ১৯ সদস্যের একটি ব্যবসায়ি প্রতিনিধিদলও সঙ্গে যাবেন। বাসস