Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সন্ধ্যা ৬:১৫ ঢাকা, বুধবার  ১৪ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

ওবায়দুল কাদের
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, ফাইল ফটো

‘প্রধানমন্ত্রী জাতীয় স্বার্থ ও সার্বভৌমত্ব বিরোধী চুক্তি করবেন না’

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতের সাথে দেশের জাতীয় স্বার্থ ও সার্বভৌমত্ব বিরোধী কোনো চুক্তি করবেন না। দেশের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট কোন চুক্তির ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী হিমালয়ের মতো অটল থাকবেন। জাতীয় স্বার্থ অক্ষুন্ন রেখে যাতে সবকিছু ঠিক থাকে সে দিক লক্ষ্য রেখেই ভারতের সাথে চুক্তি করা হবে। মন্ত্রী আজ রাজধানীর কুড়িল বিশ্বরোড ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের (পিপিপি ভিত্তিক) নির্মাণ কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, এ প্রকল্পের ভবিষ্যত নিয়ে শংকিত হবার কোন কারণ নেই। উন্নয়ন কাজ বন্ধ নেই। কাজ চলছে। আগামী দু’সপ্তাহ অর্থ্যাৎ ১৫ দিনের মধ্যে ফ্যানডিং প্রক্রিয়ায় কাজ শুরু হবে। উড়াল সেতুর কাজ চলছে।

তিনি আরও বলেন,ড্রিম প্রজেক্ট ও পিপিপি প্রজেক্ট দু’টি উন্নয়ন কাজ করা হচেছ। মেট্রো রেলের কাজটি জাইকা করছে। গুলশান বোমা হামলা ঘটনার পর ৬ মাস আমাদের কাজ বিলম্বিত হয়েছে। আশা করি আগামী ২০১৮ সালে প্রথম ধাপের উন্নয়ন কাজ শেষ করতে পারবো।

তিস্তা চুক্তির বেশ অগ্রগতি হয়েছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ভারতের সাথে বাংলাদেশের সম্পর্ক বন্ধুর মতো। এব্যাপারে হতাশ হবার কোন কারণ নেই। যিনি গঙ্গা চুক্তি করতে পারেন তিনি তিস্তা চুক্তিও করতে পারেন।

ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের (পিপিপি) অফিস সূত্রে জানা যায়, ২০১৩ সালের ১৫ ডিসেম্বর এ সংক্রান্ত একটি চুক্তি স্বাক্ষর হয়। প্রকল্পের রুট হল শাহজালাল আর্ন্তর্জাতিক বিমানবন্দর-কুড়িল-বনানী, মহাখালী-তেজগাঁও-মগবাজার-কমলাপুর-সায়েদাবাদ-যাত্রাবাড়ি-ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়ক (কুতুবখালী)।
প্রকল্পটির কাজ তিনটি ধাপে সম্পন্ন করা হবে।সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতের সাথে দেশের জাতীয় স্বার্থ ও সার্বভৌমত্ব বিরোধী কোনো চুক্তি করবেন না। দেশের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট কোন চুক্তির ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী হিমালয়ের মতো অটল থাকবেন। জাতীয় স্বার্থ অক্ষুন্ন রেখে যাতে সবকিছু ঠিক থাকে সে দিক লক্ষ্য রেখেই ভারতের সাথে চুক্তি করা হবে। মন্ত্রী আজ রাজধানীর কুড়িল বিশ্বরোড ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের (পিপিপি ভিত্তিক) নির্মাণ কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, এ প্রকল্পের ভবিষ্যত নিয়ে শংকিত হবার কোন কারণ নেই। উন্নয়ন কাজ বন্ধ নেই। কাজ চলছে। আগামী দু’সপ্তাহ অর্থ্যাৎ ১৫ দিনের মধ্যে ফ্যানডিং প্রক্রিয়ায় কাজ শুরু হবে। উড়াল সেতুর কাজ চলছে।

তিনি আরও বলেন,ড্রিম প্রজেক্ট ও পিপিপি প্রজেক্ট দু’টি উন্নয়ন কাজ করা হচেছ। মেট্রো রেলের কাজটি জাইকা করছে। গুলশান বোমা হামলা ঘটনার পর ৬ মাস আমাদের কাজ বিলম্বিত হয়েছে। আশা করি আগামী ২০১৮ সালে প্রথম ধাপের উন্নয়ন কাজ শেষ করতে পারবো।

তিস্তা চুক্তির বেশ অগ্রগতি হয়েছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ভারতের সাথে বাংলাদেশের সম্পর্ক বন্ধুর মতো। এব্যাপারে হতাশ হবার কোন কারণ নেই। যিনি গঙ্গা চুক্তি করতে পারেন তিনি তিস্তা চুক্তিও করতে পারেন।

ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের (পিপিপি) অফিস সূত্রে জানা যায়, ২০১৩ সালের ১৫ ডিসেম্বর এ সংক্রান্ত একটি চুক্তি স্বাক্ষর হয়। প্রকল্পের রুট হল শাহজালাল আর্ন্তর্জাতিক বিমানবন্দর-কুড়িল-বনানী, মহাখালী-তেজগাঁও-মগবাজার-কমলাপুর-সায়েদাবাদ-যাত্রাবাড়ি-ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়ক (কুতুবখালী)। প্রকল্পটির কাজ তিনটি ধাপে সম্পন্ন করা হবে।