Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৫:২৩ ঢাকা, বুধবার  ১৪ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

ঝালকাঠি ডাকঘর
ঝালকাঠি জেলা প্রধান ডাকঘর

পোস্ট অফিস কাউন্টারে ‘লাখ টাকা গায়েব’!!

ঝালকাঠি প্রতিনিধি ॥ ঝালকাঠি জেলা প্রধান ডাকঘরের কাউন্টার থেকে দুই গ্রাহকের একলাখ টাকা গায়েব হয়ে যাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

আজ রবিবার দুপুর দেড়টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

জানাযায়, সদর উপজেলার গোয়ালকান্দা গ্রামের বাসিন্দা রনজিত খরাতি ঝালকাঠির প্রধান ডাকঘরে (পোস্ট অফিস) ৬ বছর মেয়াদে গচ্ছিত রাখার জন্য ৫০ হাজার টাকা নিয়ে আসেন। দুপুরে তিনি ক্যাশ কাউন্টারে দাড়িয়ে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলছিলেন। কিছুক্ষণ পরে টাকা জমা দিতে গিয়ে ব্যাগে হাত দিয়ে দেখতে পান, টাকা নেই। ব্যাগটি ধারালো কোন অস্ত্র দিয়ে কাটা। অজ্ঞাত চোর/ছিনতাইকারীরা তার ব্যাগ কেটে টাকা নিয়ে গেছে বলে তিনি অভিযোগ করেন। একই সময় গ্রাহক সালেহা বেগমের হাতে থাকা দুইটি ব্যাগের মধ্যে একটি থেকে ৫০ হাজার টাকা ছিনতাই করে নিয়ে যায় অজ্ঞাত চোর/ছিনতাইকারীরা।

সালেহা বেগম অভিযোগ করেন, ঝালকাঠির প্রধান ডাকঘরে (পোস্ট অফিস) গচ্ছিত রাখার জন্য দুটি ব্যাগে দেড় লাখ টাকা নিয়ে আসি। কাউন্টারে গিয়ে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলার সময় কৌশলে ব্যাগের চেইন খুলে ৫০ হাজার টাকার একটি বান্ডিল নিয়ে যায় অজ্ঞাত চোর/ছিনতাইকারীরা। একই সময় দুটি চুরি/ছিনতাইয়ের ঘটনায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে অন্য গ্রহক ও কর্তৃপক্ষের মাঝে। টাকা উদ্ধারের জন্য উপস্থিত গ্রহকদের মাঝেও তল্লাশী চালানো হয়। গায়েব হওয়া টাকা কারো কাছেই পাওয়া যায়নি।

ঝালকাঠি প্রধান ডাকঘরের রেজিস্ট্রি অপারেটর মো. হাবিবুর রহমান বলেন, সালেহা বেগম নামে এক মহিলা আমার সাথে টাকা গচ্ছিত রাখার বিষয়ে কথা বলেন। কিছুক্ষণ পরে শুনি তার টাকা কারা যেন নিয়ে গেছে।

পোস্ট মাস্টার মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, কাউন্টারের বাহির থেকে দুইজনের ব্যাগ থেকে একলাখ টাকা নিয়ে গেছে বলে আমি শুনেছি। তবে সেটা কাউন্টারের বাহির থেকেই হয়েছে। একটি চক্র এধরণের কাজ করে থাকতে পারে। কিন্ত কোনভাবেই অফিসের কোন স্টাফ এতে জড়িত নেই। কারণ আমরা নিষ্ঠার সাথে গ্রাহকদের সেবা দিয়ে থাকি। আমি ক্ষতিগ্রস্ত ওই গ্রহকদের থানায় মামলা দায়েরের জন্য বলেছি।

ঝালকাঠি থানার ওসি মো. মাহে আলম বলেন, ঘটনা শুনে আমি পোস্ট অফিসে পুলিশ পাঠিয়েছি। তবে এখনো কোন গ্রাহক লিখিত অভিযোগ দেননি। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।