ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১২:০১ ঢাকা, রবিবার  ২৩শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

তোফায়েল আহমেদ
বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ

পেপারলেস বাণিজ্যে সময়, শ্রম-ব্যয় হ্রাস ও স্বচ্ছতা নিশ্চিত হবে

প্রতিযোগিতা মূলক বিশ্ব বাণিজ্যের ডিজিটাল পদ্ধতিতে সক্ষমতা অর্জনের জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে উপযুক্ত হিসেবে তৈরি হওয়ার আহবান জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

তিনি বলেন, বিশ্ববাণিজ্য যখন ডিজিটাল পদ্ধতিতে দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে,তখন আমাদের পিছিয়ে থাকার সুযোগ নেই। পেপারলেস বাণিজ্যে সময়, শ্রম ও ব্যয় হ্রাস পাবে এবং কাজের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত হবে। এজন্য আমাদের এক্ষেত্রে সক্ষমতা বাড়াতে হবে।

মঙ্গলবার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে ‘ক্রস বর্ডার পেপারলেস ট্রেড ফেসিলিটেশন ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশ ফরেন ট্রেড ইনস্টিটিউট (বিএফটিআই) কর্মশালার আয়োজন করে।

বিএফটিআই প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আলী আহমেদের সভাপতিত্বে কর্মশালায় এনবিআরের চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান,বাণিজ্য সচিব শুভাশীষ বসু,ট্যারিফ কমিশনের চেয়ারম্যান মুসফিকা ইকফাত,প্রধান নিয়ন্ত্রক (আমদানি ও রফতানি) ফিরোজা খান, সাবেক সচিব সোহেল আহমেদ,সাবেক রাষ্ট্রদূত মুন্সী ফয়েজ আহমেদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন,ডিজিটাল পদ্ধতিতে বাণিজ্য পরিচালনা করলে আমদানি-রফতানি সহজ হবে,বাণিজ্য ব্যয়ও উল্লেখযোগ্য হারে কমবে। গবেষণায় দেখা গেছে,বর্তমানের তুলনায় ব্যবসার খরচ ১৭ থেকে ৩১ শতাংশ কমবে এবং সময় বাচবে ২৪ থেকে ৪৪ শতাংশ। বিশ্ব এখন ডিজিটাল পদ্ধতির দিকে যাচ্ছে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

সরকারের এই জ্যেষ্ঠ মন্ত্রী আরো বলেন,বাংলাদেশ ২০২১ সালের মধ্যে ৬০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রফতানির লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে এগুচ্ছো। সেবাখাত বাদে গত বছর প্রায় ৩৪ দশমিক ৬৬ বিলিয়ন ডলার রফতানি করেছে।এ বছর ৩৭ দশমিক ৫ বিলিয়ন ডলার রফতানির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে।

উল্লেখ্য, বিশ্ববাণিজ্য সংস্থা (ডব্লিউটিও) বাণিজ্য সহজীকরণের জন্য সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর সাথে চুক্তি স্বাক্ষরের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে।২০১৩ সালে বালিতে অনুষ্ঠিত ডব্লিউটিও মিনিস্টিরিয়াল কনফারেন্সের সিদ্ধান্ত মোতাবেক বাংলাদেশ গতবছল ২৭ সেপ্টেম্বর বিষয়টি অনুমোদন করে।আগামী ২৯ আগষ্ট বাংলাদেশ থাইল্যান্ডের ব্যাংককে বাণিজ্য সহজীকরণ চুক্তিতে স্বাক্ষর করবে।