ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৭:৪৪ ঢাকা, রবিবার  ২১শে অক্টোবর ২০১৮ ইং

উপ-পুলিশ কমিশনার জিল্লুর রহমান

প্রশ্নবিদ্ধ কর্মকাণ্ডের ফলে পুলিশ বাহিনীর ভাবমূর্তি ক্ষতিগ্রস্ত

দেশের আইনশৃংখলা রক্ষার দায়িত্ব পুলিশ বাহিনীর। দুষ্টের দমন এবং শিষ্টের পালনের যে গণতান্ত্রিক শাসন, তার সাফল্যের অনেকটাই পুলিশের সুষ্ঠু কর্তব্য পালনের সঙ্গে সম্পর্কিত। সাম্প্রতিককালে পুলিশের কিছু সদস্যের প্রশ্নবিদ্ধ কর্মকাণ্ডের ফলে গোটা পুলিশ বাহিনীর ভাবমূর্তি ভীষণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পড়ছে। বিষয়টি উদ্বেগজনক। আইনশৃংখলা রক্ষা করার বদলে আইন-শৃংখলা ভঙ্গ করাই যেন হয়ে উঠেছে কোনো কোনো পুলিশ সদস্যের কাজ। আর এমন কাজ এত অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেছে যে, কাকের মাংস কাকে খায় না- এমন লোকবাক্যকে মিথ্যা প্রমাণ করে পুলিশ উৎকোচ আদায় করছে পুলিশেরই সদস্যদের কাছ থেকে।
পুলিশের কিছু অসাধু সদস্যের কর্মকাণ্ডে কালিমালিপ্ত হচ্ছে গোটা বাহিনী। পদোন্নতি বাণিজ্যে ধরা খাওয়া বরিশাল পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার জিল্লুর রহমান উৎকোচের অর্থ ফেরত দিলেও অন্য অনেক অপকর্মের সঙ্গে জড়িত পুলিশের সদস্যরা বহাল তবিয়তে দিব্যি চাকরি চালিয়ে যাচ্ছেন। ফলে দেশে অপরাধের বিস্তৃতি ঘটছে। আবার এমনও দেখা যাচ্ছে, অপরাধের সঙ্গে জড়িত থাকার অপরাধে যাদেরকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে, তারা তাদের সাবেক পরিচয় ভাঙিয়ে আরও অনেক বড় অপরাধের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ছে। পুলিশের পেশায় থেকেও বড় অপরাধের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ার সর্বশেষ উদাহরণ ইয়াবাসহ আটক পলিশ সদস্য মাহফুজুর রহমান।
একটি সুশৃংখল বাহিনী হিসেবে পুলিশের সদস্যদের এই নৈতিকবিচ্যুতি বিষয়ে উদ্বিগ্ন অপরাধ বিশেষজ্ঞরা রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে পুলিশকে ব্যবহার, পুলিশের বিভিন্ন পদে নিয়োগের সময় ঘুষ বাণিজ্য, পদোন্নতির ক্ষেত্রে বিভিন্ন অনিয়ম ইত্যাদিকে দায়ী করেছেন। সর্বোপরি যে নীতি-আদর্শ নিয়ে পুলিশ গঠিত, সেই নীতি-আদর্শ সম্পর্কে তাদের সচেতন না করাকেও দায়ী করেন তারা। একজন বিশেষজ্ঞ বিশেষভাবে গুরুত্ব প্রদান করেছেন পুলিশের শারীরিক প্রশিক্ষণের সঙ্গে সঙ্গে নৈতিকতা, মূল্যবোধ ও জনগণের প্রতি তাদের দায়বদ্ধতা বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদানের ওপর। পাশাপাশি উন্নত বিশ্বের দৃষ্টান্ত অনুসরণ করে পুলিশের সম্মানজনক বেতন-ভাতা, সুযোগ-সুবিধা প্রদানের ওপরও তারা দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।
পুলিশে নিয়োগ বাণিজ্যের যে অদৃশ্য অনৈতিক ব্যবস্থা তৈরি হয়েছে তা কঠোরভাবে দমন করতে হবে। পুলিশকে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে তার প্রকৃত নীতি ও আদর্শের ওপর। ক্ষমতার দাপট এবং ক্ষমতার প্রভাবমুক্ত করে পুলিশকে জনগণের বন্ধু রূপে গড়ে তোলা না গেলে দেশের আইন-শৃংখলার উন্নতি করা দুরূহ হয়ে পড়বে।