Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ৮:২৮ ঢাকা, শুক্রবার  ১৬ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

পুঁজিবাজারে লেনদেনে নতুন পদ্বতিঃ গতিশীলতার সম্ভাবনা

আগামী ১১ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার থেকে পুঁজিবাজারে নতুন সফটওয়্যার উদ্বোধন করার কথা রয়েছে। লেনদেনের নতুন সিস্টেম চালুর পর দীর্ঘ দিনের পরিচিত লট প্রথা বাতিল হয়ে যাবে। ফলে বিনিয়োগকারীরা ইচ্ছে মতো শেয়ার লেনদেন করতে পারবে। এতে বাজার আরো গতিশীল হবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের নতুন ওয়েব বেইজড ট্রেডিং সফটওয়্যার সিস্টেম চালু করতে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে সফটওয়্যার চালুর যাবতীয় প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে। চলতি বছরের ২১ মার্চ আমেরিকার নাসডাক ওএমএক্স ও ফ্লেক্সট্রেড কোম্পানির কাছ থেকে নতুন আধুনিক প্রযুক্তির ট্রেডিং প্লাটফর্ম কেনার বিষয়ে ডিএসইর চুক্তি হয়। সে অনুযায়ী প্রতিষ্ঠান দুটি নতুন ট্রেডিং সিস্টেমের কাজ করছে।

বর্তমানে একজন বিনিয়োগকারী লট ছাড়া শেয়ার বিক্রি করতে চাইলে বাজার মূল্য থেকে অনেক কমে বিক্রি করতে হয়। এছাড়া শেয়ার বেচতে অডলট মার্কেটে অনেক দুর্ভোগ পোহাতে হয়। নতুন সফটওয়্যার সম্পর্কে সংশ্লিষ্ট  সূত্র জানায়, বর্তমানে অড লটের যে সমস্যা আছে লেনদেনের নতুন সিস্টেম চালুর পর তার সমাধান হবে। নতুন সিস্টেমে লট বলতে কিছু থাকবে না। এতে বিনিয়োগকারীরা ইচ্ছে মতো শেয়ার ক্রয়-বিক্রয় করতে পারবে। এ সফটওয়্যারের মাধ্যমে একজন বিনিয়োগকারী নোটবুক, আইপ্যাড বা স্মার্ট ফোনের মাধ্যমে অনলাইনে শেয়ার ক্রয়-বিক্রয় করতে পারবেন। সফটওয়্যারটি চালুর পরবর্তী ধাপে অ্যাপস করা যাবে। মূলত এ সফটওয়্যারের মাধ্যমে অনেকগুলো কাজ একসঙ্গে করা যাবে। বর্তমান প্রচলিত লেনদেন পদ্ধতি এমএসএ প্লাসের চেয়ে নতুন সিস্টেম আরো নিরাপদ ব্যবস্থা। নতুন লেনদেন ব্যবস্থাটি বিশ্বের অন্যতম স্টক এক্সচেঞ্জ আমেরিকার নাসডাকের সহযোগী কোম্পানি নাসডাকওএমএক্সের ট্রেডিং সিস্টেম। এছাড়া শেয়ার ক্রয় ও বিক্রয় আদেশ ব্যবস্থাপনার জন্য ব্যবহার করা হবে বিশ্ববিখ্যাত ফ্লেক্সট্রেড সিস্টেমস। বর্তমান লেনদেন পদ্বতিতে যেকোনো বিনিয়োগকারীর পোর্টফোলিও দেখতে পারেন সিকিউরিটিজ হাউজের অথরাইজড রিপ্রেজেন্টেটিভ (ট্রেডার)। এতে বিনিয়োগকারীর ব্যক্তিগত তথ্য গোপন থাকে না। এছাড়া কোনো কোনো সময় বিনিয়োগকারী অর্ডার না দিলেও শেয়ার কেনা-বেচা করে সিকিউরিটিজ হাউজ। কিন্তু নতুন লেনদেন সিস্টেমে বিনিয়োগকারী ব্যতিত কেউ শেয়ার ক্রয়-বিক্রয় করতে পারবে না। নতুন সফটওয়্যারের মাধ্যমে এ ধরনের সব সমস্যার সমাধান হবে। নতুন সফটওয়্যারের মাধ্যমে অনেকগুলো কোম্পানির শেয়ার ওঠানামা বিষয়টি এক স্কিনে দেখা যাবে। ফলে একদিনে বিপুল শেয়ার লেনদেন করা যাবে। সেই সঙ্গে নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বিএসইসি ইচ্ছে করলে তাৎক্ষণিক বাজারের লেনদেনের তথ্য জানতে পারবেন। এতে বাজারে স্বচ্ছতা ফিরে আসবে । নতুন লেনদেন ব্যবস্থা হবে অত্যন্ত আধুনিক প্রযুক্তির। যা বর্তমান লেনদেন ব্যবস্থার চেয়ে অনেক নিরাপদ। এ সফটওয়্যারের মাধ্যমে ডেরিভেটিভ প্রোডাক্ট, কমোডিটি লেনদেনও চালু করা যাবে। এর ফলে বিদেশি মানুষ বিনিয়োগে আকৃষ্ট হবে।

ইতোমধ্যে নতুন সিস্টেমে লেনদেনের পদ্ধতি সম্পর্কে সংশ্লিষ্টদের প্রশিক্ষণ, পরীক্ষামূলক লেনদেন (মগ), অর্ডার ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার সম্পর্কে ধারণা দিতে ট্রেনিং প্রোগ্রামও চলছে। তবে মগ ট্রেডিং এ অংশ গ্রহণকারীরা অনেকেই জানিয়েছেন স্ক্রিনের ফ্রন্ট ছোট তাই দেখতে কিছুটা অসুবিধা মনে হয়।