ব্রেকিং নিউজ

সকাল ১০:০৫ ঢাকা, শনিবার  ২২শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

পাক বিশ্ববিদ্যালয়ে জঙ্গি হামলা, অধ্যাপকসহ নিহত ২১

পাকিস্তানের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় খাইবার পাখতুনখোয়ার চারসাদ্দা শহরে বুধবার সকালে বাচা খান বিশ্ববিদ্যালয়ে বন্দুকধারীদের হামলায় বহু হতাহতের আশংকা করা হচ্ছে। দেশটির প্রভাবশালী ইংরেজি দেনিক ডন- এর অনলাইন সংস্করণ একটি স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠানের বরাত দিয়ে জানায়, হামলায় এ পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়টির অধ্যাপকসহ ২১ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এছাড়া জঙ্গিদের বেপরোয়া গুলিবর্ষণে অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়টিতে প্রায় ৩ হাজার শিক্ষার্থী রয়েছে। ডনের খবরে আরো বলা হয়, মৃতের সংখ্যা আরো দীর্ঘ হতে পারে। দেশটির সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা সাঈদ ওয়াজির গণমাধ্যমকে জানান, তাদের অভিযানে চার বন্দুকধারী মারা গেছেন। সেখানে বন্দুকধারীদের সঙ্গে নিরাপত্তাবাহিনীর ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে। সেনাবাহিনীর ওই কর্মকর্তা জানান, সকাল ৯টার দিকে বন্দুকধারীরা গুলিবর্ষণ করতে করতে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে পবেশ করে। খবর পেয়ে নিরাপত্তা বাহিনী সঙ্গে সঙ্গে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি ঘিরে ফেলে। এরপর বন্দুকধারীদের বিরুদ্ধে অভিযান চালায়। এ সময় ব্যাপক গোলাগুলি ও দুটি বিষ্ফোরণের শব্দ পেয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতরে অবস্থানরত এক নারী টেলিফোনে ডন নিউজকে গোলাগুলির বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এ সময় তিনি সাহায্যের প্রার্থনা করে অবিলম্বে ঘটনাস্থলে নিরাপত্তা বাহিনীকে পাঠানোর জন্য অনুরোধ করেন। সম্প্রতি খাইবার পাখতুনখোয়া অঞ্চলে পাকিস্তানি নিরাপত্তা বাহিনী ব্যাপক অভিযান চালিয়ে তালিকাভুক্ত চার জঙ্গিকে আটক করে। এর প্রতিবাদে এ হামলা হয়ে থাকতে পারে বলে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর ধারণা। পেশোয়ার থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত চারসাদ্দা শহরের বিশ্ববিদ্যালয়টিতে গত কয়েক বছরে বেশ কয়েকবার হামলা চালিয়েছে জঙ্গিরা। ২০১৪ সালে তালেবান জঙ্গিরা পেশোয়ারের একটি স্কুলে নির্বিচারে গুলিবর্ষণ করে ১৩০ শিক্ষার্থীকে হত্যা করেছিল।