Press "Enter" to skip to content

পাক নিরাপত্তার ৩০ কোটি ডলার বাতিল যুক্তরাষ্ট্রের

জঙ্গি গোষ্ঠী দমনে যথাযথ পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হওয়ায় পাকিস্তানে ৩০ কোটি ডলার আর্থিক সহায়তা বাতিল করতে চলেছে মার্কিন সামরিক বাহিনী। মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ল্যাফটেনান্ট কর্নেল কনে ফকনার জানিয়েছেন, মার্কিন সামরিক বাহিনী এই অর্থ অন্যান্য জরুরী খাতে ব্যয় করবে।

জানুয়ারি মাসে যুক্তরাষ্ট্র ঘোষণা দেয় যে, পাকিস্তানের জন্য বরাদ্দকৃত সকল নিরাপত্তা সহায়তা বাতিল করা হবে। ৩০ কোটি ডলার সহায়তা বাতিলের পদক্ষেপটিও ওই ঘোষণার অংশভুক্ত। তবে ঘোষণা দিলেও তা বাস্তবায়নের জন্য প্রয়োজন মার্কিন কংগ্রেসের অনুমোদন।

প্রসঙ্গত, সাম্প্রতিক এই ঘোষণার আগেই পাকিস্তানের বিরুদ্ধে শত শত কোটি ডলার সহায়তা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে প্রতারণা করার অভিযোগ এনেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

পাকিস্তানের সমালোচনা করেছে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও। তারা বলেছে, যুক্তরাষ্ট্রের একটি গুরুত্বপূর্ণ মিত্রদেশ হওয়া সত্ত্বেও, হাক্কানি নেটওয়ার্ক ও আফগান তালিবানসহ তাদের মাটিতে সক্রিয় জঙ্গি দলগুলোর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হয়েছে পাকিস্তান।

শনিবার দেওয়া এক বিবৃতিতে কর্নেল ফকনার বলেন, আমরা পাকিস্তানকে সকল জঙ্গি দলের বিরুদ্ধে নির্বিশেষে পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য চাপ দেওয়া অব্যাহত রেখেছি। তিনি আরো বলেন, এসব ইস্যু সামাল দিতে পাকিস্তানের শক্তিশালী পদক্ষেপের অভাবের কারণে এই বাতিল করা ৩০ কোটি ডলার অন্য কোন খাতে ব্যবহার করা হবে।

প্রসঙ্গত, আর চারদিন পরই পাকিস্তানের নব-নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সঙ্গে সাক্ষাত করতে পাকিস্তান যাওয়ার কথা রয়েছে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর। এর আগ দিয়ে এই বিশাল অঙ্কের সহায়তা বাতিল করা হলো।

যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্যান্য কয়েকটি দেশ অভিযোগ করে আসছে যে, পাকিস্তান সন্ত্রাসীদের নিরাপদ স্বর্গ হিসেব ব্যবহৃত হয়। তবে পাকিস্তান বরাবরই এই অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে। -বিবিসি

শেয়ার অপশন:
Don`t copy text!