ব্রেকিং নিউজ

রাত ১২:২৪ ঢাকা, রবিবার  ২৩শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

পাকিস্তানে সেনা স্কুলে জঙ্গি হামলায় নিহত ১০৪

পাকিস্তানের পেশোয়রে ওয়ারসাক রোডে সেনাবাহিনী পরিচালিত একটি স্কুলে আজ মঙ্গলবার দুপুরে তালেবান জঙ্গিদের হামলায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ৮৪ শিশুসহ ১০৪ জন নিহত হয়েছে। জঙ্গিরা স্কুলের ভেতরে প্রায় ৫০০ জন শিক্ষক ও শিক্ষার্থীকে জিম্মি করে রেখেছে।
জঙ্গি সংগঠন তেহেরিক-ই-তালেবান পাকিস্তান (টিটিপি) হামলার দায় স্বীকার করেছে। তারা এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, সেনাবাহিনী তাদের পরিবারবর্গকে টার্গেট করে। তাই এ স্কুলে এ হামলা চালানো হয়েছে। আমরা চাই ‘তারা আমাদের কষ্ট বুঝুক’।
প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ ও সেনা প্রধান জেনারেল রাহিল শরিফ পেশোয়ার যাত্রা করেছেন।
পাকিস্তানের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের খাইবার-পাখতুনখোয়া অঞ্চলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, নিহত ব্যক্তিদের মধ্যে স্কুলের দু’জন শিক্ষক রয়েছেন।
সেনাবাহিনী পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য প্রাণপণ চেষ্টা চালাচ্ছে।
একটি সূত্রের বরাত দিয়ে এএফপির খবরে জানানো হয়, সামরিক পোশাক পরা পাঁচ জঙ্গি পাবলিক স্কুলে ঢুকে পড়ে।
সেনাবাহিনীর একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার জানান, তারা স্কুলের চারপাশ ঘিরে রেখেছেন। টেলিভিশন ফুটেজে তাদের অবস্থান দেখানো হচ্ছে।
পেশোয়ারের লেডি রিডিং হাসপাতালের চিকিৎসক শিরফ খান জানান, তাদের কাছে তিনজন শিক্ষার্থীর মরদেহ এসে পৌঁছেছে। আহত ৩৫ জনকে সেখানে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তাদের মধ্যে দু’জন ওই স্কুলের শিক্ষক।
একজন জ্যেষ্ঠ পুলিশ কর্মকর্তা জানান, নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। স্কুলের ভেতরে বড় ধরনের বিস্ফোরণ ঘটে থাকতে পারে। সেনাবাহিনীর একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা জানান, স্কুলের চারপাশ নিরাপত্তারক্ষীরা ঘিরে রেখেছে। তারা জঙ্গিদের বিরুদ্ধে অভিযান চালাচ্ছেন।
ওই স্কুলের বেশির ভাগ শিক্ষার্থীই সেনাবাহিনীর সদস্যদের সন্তান। স্কুলের শিক্ষার্থীদের বয়স ১০ থেকে ১৮ বছর। স্কুলটির শিক্ষকেরা বেশির ভাগ সেনাসদস্যদের স্ত্রী বলে জানা গেছে।
টিটিপির মুখপাত্র মোহাম্মদ খোরাসানি এএফপিকে জানান, হামলাকারীরা সংখ্যায় ছয়জন।

Leave a Reply