Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৫:২৫ ঢাকা, বুধবার  ১৪ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

খালেদা জিয়া ও মাহবুব উল আলম হানিফ
খালেদা জিয়া ও মাহবুব উল আলম হানিফ

“পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থার নির্দেশেই চলেন খালেদা জিয়া”

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, পাকিস্তানী গোয়েন্দা সংস্থার জরিপের ফল দিয়ে বিএনপি দেশের জনগণের ভোট পাবে না। আজ সকালে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) একাংশের দ্বিবার্ষিক কাউন্সিলে বেগম খালেদা জিয়ার বক্তব্যের জবাবে মাহবুব উল আলম হানিফ আজ দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন। নগরীর সুপ্রিম কোর্ট মিলনায়তনে বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, মানুষ ধানের শীষে ভোট দেয়ার জন্য বসে আছে। অবাধ নির্বাচন হলে ৮০ ভাগের বেশি ভোট পেয়ে ধানের শীষ বিজয়ী হবে। মাহবুব-উল-আলম হানিফ বলেন, কোন জরিপ থেকে বেগম খালেদা জিয়া এ তথ্য পেলেন তা দেশের মানুষ জানতে চায়। তবে পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থার জরিপের তথ্য হয়তো ওনার কাছে থাকতে পারে। কারণ তিনি তো এখন পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থার নির্দেশেই চলেন।
আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, পাকিস্তানি এজেন্ডা বাস্তবায়ন করার জন্য পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্ট তার কাছে থাকবে এটাই স্বাভাবিক।
হানিফ বলেন, পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থার জরিপের ফল দিয়ে বাংলাদেশী জনগণের ভোট পাওয়া যাবে না। আপনি রাষ্ট্র ক্ষমতায় থাকতে এবং ক্ষমতার বাইরে থাকতেও যে অপকর্ম, সহিংসতা, হত্যা, সন্ত্রাসসহ নারকীয় তান্ডব করেছেন-তার কারণে বাংলার জনগণ কখনো আপনাকে ভোট দেবে না ।
হানিফ বলেন, ‘আপনার (খালেদা) সকল অপকর্মের কারণে যেখানে আপনার লজ্জা হওয়া উচিত, সেখানে এখন আবার বড় গলায় দাবি করছেন, আপনার পক্ষে ৮০ ভাগ জনগণ ভোট দেবে।’
সরকার নাকি কৌশলে ভুল করেছে খালেদা জিয়ার এই বক্তব্যের সমালোচনা করে হানিফ বলেন, সরকার কেন ভাববে বিএনপি নির্বাচনে আসবে না। সরকার ও আওয়ামী লীগ চায় যে, দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য স্থানীয় পর্যায়ে অবাধ, সুষ্ঠ নির্বাচনে মাধ্যমে জনপ্রতিনিধিরা নির্বাচিত হবে। আমরা সবসময়ই চাই আপনারা নির্বাচনে আসুন। বরং বিভিন্ন সময়ে নির্বাচনে অংশ না নিয়ে ভুলগুলো আপনারাই করেছেন, আমরা কৌশলে কোন ভুল করিনি।
সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মনি এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক এমপি, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি, স্বাস্থ্য সম্পাদক ডা. বদিউজ্জামান ভুঁইয়া ডাবলু, দফতর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য সুজিত রায় নন্দী, এস এম কামাল হোসেন।

http://www.bssnews.net/bangla/newsDetails.php?cat=6&id=324077&date=2015-12-27