Press "Enter" to skip to content

পশ্চিমবঙ্গ-খেপুপাড়ার দিকে বাঁক নিয়েছে ‘ঘূর্ণিঝড়’

পশ্চিমবঙ্গের সাগরদ্বীপ এবং বাংলাদেশের খেপুপাড়ার দিকে বাঁক নিয়েছে অতি ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড় বুলবুল। তার আকার আরও বড় হচ্ছে। খবর কলকাতা থেকে আনন্দবাজার পত্রিকার সন্ধ্যা ৫ঃ৩৭ এর আপডেট।

আবহাওয়া বিজ্ঞানীদের মতে, শনিবার রাতেই তা আঘাত হানবে স্থলভাগে। আশঙ্কা বাড়ছে, বুলুবুল কোথায় গিয়ে আছড়ে পড়বে তা নিয়ে। আজ রাতে কি তবে সাগরদ্বীপে ছোবল মারতে চলেছে বুলুবুল? না কি আরও সরে গিয়ে আছড়াবে খেপুপাড়ার কাছে? এখনও নিশ্চিত ভাবে কিছু বলছেন না আবহাওয়া বিজ্ঞানীরা। সাগরদ্বীপ থেকে খেপুপাড়ার মধ্যে তার বিস্তার থাকলেও দিল্লির মৌসম ভবন কিন্তু জানাচ্ছে, বুলবুল আঘাত হানার সম্ভাবনা রয়েছে এ রাজ্যের সুন্দরবন এলাকায়।

শনিবার দুপুর দুটো নাগাদ ওড়িশার পারাদ্বীপ থেকে দূরত্ব বাড়িয়ে তা ক্রমশই গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের দিকে এগোচ্ছে। আবহাওয়া বিজ্ঞানীদের অনুমান, শনিবার রাত ৮টা থেকে ১২টার মধ্যে সাগরদ্বীপ থেকে বাংলাদেশের খেপুপাড়ার মধ্যে অতি ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়টি আছড়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কেন্দ্রীয় আবহবিজ্ঞান বিভাগের ঘূর্ণিঝড় বিভাগের প্রধান বিজ্ঞানী মৃত্যুঞ্জয় মহাপাত্র বলেন, ‘‘এই ধরনের ঘুর্ণিঝড় অনেকটা জায়গা জুড়ে আঘাত হানে। বুলবুলও অনেকটা জায়গা নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশের উপকূলে আছড়ে পড়বে। এখনও পর্যন্ত যা গতি প্রকৃতি বোঝা যাচ্ছে, তাতে মনে হচ্ছে সুন্দরবন এবং তার আশপাশেই বুলবুলের আছড়ে পড়বে।”

ইতিমধ্যেই দিঘা এবং সাগরদ্বীপের অনেক কাছে চলেছে বুলবুল। দুপুর দুটোর সময় ওই দুই জায়গা থেকে বুলবুল মাত্র ৯৫ কিলোমিটার দূরে রয়েছে বলে আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর। কলকাতা থেকে তার দূরত্ব ২০০ কিলোমিটার। বাংলাদেশের খেপুপাড়া থেকেও বুলবুলের দূরত্বও কমে হয়েছে ৪৮৫ কিলোমিটার। বুলবুল আরও কাছে চলে আসায় পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশের উপকূলবর্তী এলাকায় জলোচ্ছ্বাসের সঙ্গে ঝোড়ো হাওয়ার গতিবেগও ক্রমশই বৃদ্ধি পাচ্ছে।

শেয়ার অপশন: