ব্রেকিং নিউজ

রাত ৮:২২ ঢাকা, শুক্রবার  ২১শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

‘গোপনে জঙ্গি-সন্ত্রাসীদের তথ্য দিতে পুলিশের অ্যাপ’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) নতুন অ্যাপসের মাধ্যমে জঙ্গিসহ যেকোন অপরাধীর তথ্য দিয়ে যে কেউ পুলিশ বাহিনীকে সহযোগিতা করতে পারবেন।

তিনি বলেন, যে কোন নাগরিক নিজের পরিচয় ও মোবাইল নম্বর গোপন রেখে যেকোন স্থান থেকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের মদদদাতা ও অর্থদাতাদের তথ্য পুলিশকে জানাতে পারবেন।

তিনি আজ রোববার ডিএমপি’র মিডিয়া সেন্টারে নতুন এ অ্যাপসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।

পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) একেএম শহীদুল হক, ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া, ডিএমপি’র অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার ও কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটি) ইউনিট প্রধান মো. মনিরুল ইসলামসহ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

জঙ্গি ও উগ্রবাদ, সাইবার ক্রাইম, বোমা, বিস্ফোরক, অস্ত্র, মাদক, এবং আন্তঃদেশীয় অপরাধ, জালিয়াতি এবং মোস্ট ওয়ান্টেড ব্যক্তিদের তথ্য জানাতে ‘হ্যালো সিটি’ নামে অ্যাপস তৈরি করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটি) ইউনিট।

আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, ‘গুলশানের হলি আর্টিজানে নিষ্ঠুরতার পরই আমরা এ ধরনের অ্যাপসের কথা ভাবতে শুরু করি। এ অ্যাপসের মাধ্যমে নিজের পরিচয় গোপন রেখে অপরাধ সংক্রান্ত যে কোনো তথ্য জানানো সম্ভব।’

এ দেশ সম্প্রীতির দেশ উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা শুধু বিশ্বাসই নয়, প্রমাণ করেছি এ দেশে সব ধর্মের মানুষ যার-যার ধর্ম পালন করে। কিন্তু এ সম্প্রীতির ধারাকে বাধাগ্রস্থ করতে একটি চক্র এ নাশকতা ঘটাচ্ছে।’

একেএম শহীদুল হক বলেন, ‘কেউ তথ্য দিয়ে সাহায্য করলে পুলিশ তার পরিচয় গোপন রাখে। তারপরও অনেকেই পরিচয় দিতে সংকোচ বোধ করেন। তাদের জন্য আমাদের এ অ্যাপসটি কার্যকর ভূমিকা পালন করবে।’

ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ‘সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের শেকড় উপড়ে ফেলতে বর্তমান সরকার বদ্ধপরিকর। তিনি বলেন, অতি সহজে যে কেউ জঙ্গিবাদের অর্থদাতা, মদদদাতা ও আস্তানা সম্পর্কে যে কোনো তথ্য জানাতে পারেন সেই জন্য এ অ্যাপসটি তৈরি করা হয়েছে। আমাদের এ অ্যাপসটি জঙ্গিবাদ মোকাবিলায় খুবই কার্যকর ভূমিকা রাখবে।’

সভার শুরুতে অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মো. মনিরুল ইসলাম স্বাগতম বক্তব্যে বলেন, ‘পরিচয় গোপন রেখেই এ অ্যাপসের মাধ্যমে পুলিশকে চার ক্যাটাগরিতে তথ্য জানানোর জন্য শুধু অ্যান্ড্রয়েড ভার্সন প্রকাশ করা হচ্ছে। এক সপ্তাহ পর উইন্ডোজ ভার্সন আসবে। পরিচয় বা মোবাইল নম্বর উল্লেখ না করে অ্যাপসটির মাধ্যমে যে কেউই দেশ বা বিদেশ থেকে অপরাধের তথ্য জানাতে পারবে। তিনি বলেন,অ্যাপসটির প্রথমেই রয়েছে জঙ্গি ও উগ্রবাদ ক্যাটাগরি। এরপর রয়েছে যথাক্রমে বিস্ফোরক, অস্ত্র এবং আন্তঃদেশীয় অপরাধ। ব্যবহারকারী এর যে কোনোটিতেই প্রবেশ করে তথ্য দিতে পারবেন।’

মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘ভোগান্তির কথা বিবেচনা করে অনেক অপরাধ দেখেও না দেখার ভান করে সাধারণ মানুষ। কারণ পুলিশ বা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে অপরাধের তথ্য দিলে পরবর্তীতে তাদের নানা ধরনের ভোগান্তির সম্মুখীন হতে হয়। এ সব ভোগান্তি দূর করতেই অত্যাধুনিক এ অ্যাপস প্রকাশ করা হলো।