Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সকাল ১০:৪১ ঢাকা, রবিবার  ১৮ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

পণ্য ভারতে প্রবেশে অশুল্ক প্রতিবন্ধকতা প্রত্যাহারের পরামর্শ

Like & Share করে অন্যকে জানার সুযোগ দিতে পারেন। দ্রুত সংবাদ পেতে sheershamedia.com এর Page এ Like দিয়ে অ্যাক্টিভ থাকতে পারেন।

 

বাংলাদেশি পণ্য ভারতের বাজারে সহজে প্রবেশের জন্য অশুল্ক প্রতিবন্ধকতা প্রত্যাহারের পরামর্শ দিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। তিনি বলেন, এর মাধ্যমে দু’দেশের মধ্যে বাণিজ্যিক সম্পর্ক আরো সুদৃঢ় হবে। শুধু ব্যবসায়িক প্রয়োজনে নয়, দু’দেশের জনগণের মধ্যে যোগাযোগ বাড়াতে ভারতীয় ভিসা প্রদান প্রক্রিয়া সহজ করা প্রয়োজন বলে তিনি অভিমত দেন।
বাংলাদেশ সফররত ইন্ডিয়ান চেম্বার অব কমার্স (আইসিসি)-এর বারো সদস্যের শিল্প উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়ী প্রতিনিধিদলের সাথে বৈঠককালে শিল্পমন্ত্রী গতকাল এ পরামর্শ দেন। রাজধানীর নিউ ইস্কাটনে মন্ত্রীর বাসভবনে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
বৈঠকে ইন্ডিয়া-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আলী, আইসিসি’র প্রেসিডেন্ট রূপেন রায়, সাবেক প্রেসিডেন্ট জগদীশ প্রসাদ চৌধুরী, কনফেডারেশন অব ইন্ডিয়ান ইন্ডাস্ট্রিজের পূর্বাঞ্চলের সাবেক চেয়ারম্যান সঞ্চয় বুধিয়া, রবি অটো গ্রুপের চেয়ারম্যান রবি পোদ্দার, ইন্ডিয়া-চীন কো-অপারেশন প্রমোশন সেন্টারের চেয়ারম্যান এম কে শাহরিয়া, আইসিসি’র মহাপরিচালক ড. রাজিভ সিং, জার্মানভিত্তিক প্রতিষ্ঠান এফইএএল জিএমবিএইচ-এর চেয়ারম্যান অসীম ক্লিংবার্গ, প্রধান নির্বাহি ডি কে ব্যানার্জি, ব্যবস্থাপনা পরিচালক দেবাশীষ মুখার্জি, নর্থ-ইস্ট ইনিসিয়েটিভের উপদেষ্টা নকিব আহমেদসহ অন্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন বলেন, বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে বাণিজ্যিক সম্পর্ক বাড়াতে দু’দেশের ব্যবসায়ী ও শিল্প উদ্যোক্তা পর্যায়ে উদ্যোগ নিতে হবে। এ ক্ষেত্রে সরকার সহায়কের ভূমিকা পালন করবে। বিদেশি বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশ সরকার বিশটি অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ করছে। নিকটতম প্রতিবেশি রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশ বিনিয়োগের জন্য ভারতের উদ্যোক্তাদের সবসময় অগ্রাধিকার দিয়ে থাকে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
বৈঠকে প্রতিনিধিদলের সদস্যরা বাংলাদেশে সার্কভুক্ত দেশগুলোর বিনিয়োগ বাড়াতে ’সার্ক ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক’ গড়ে তোলার পরামর্শন দেন। তারা বলেন, এ শিল্প পার্ক গড়ে তুললে বাংলাদেশে ৫ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ আসবে। এর ফলে বাংলাদেশে কর্মসংস্থান ও বিনিয়োগের ক্ষেত্রে নতুন মাত্রা সংযোজিত হবে। তারা দু’দেশের মধ্যে বাণিজ্য সম্পর্কিত যে কোনো প্রতিবন্ধকতা সম্মিলিত উদ্যোগে অপসারণ করা হবে বলে জানান।
বৈঠকে প্রতিনিধিদলের সদস্যরা বাংলাদেশি উদ্যোক্তাদের ভারতে বিনিয়োগের আমন্ত্রণ জানান। ভারতে রপ্তানির ক্ষেত্রে বাংলাদেশি যেসব পণ্যের বিপরীতে অশুল্ক বাধা আরোপ করা হয়ে থাকে, সেগুলো সুনির্দিষ্টভাবে চিহ্নিত করে দূর করার জন্য ভারতের ব্যবসায়ীরা উদ্যোগ নেবে বলে তারা মন্ত্রীকে আশ্বস্ত করেন। তারা বাংলাদেশের সাথে ঐতিহাসিকভাবে গড়ে ওঠা সাংস্কৃতিক সম্পর্ক কাজে লাগিয়ে বাণিজ্যিক সম্পর্ক জোরদারের আশা প্রকাশ করেন।