ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১২:৫৯ ঢাকা, শনিবার  ১৮ই আগস্ট ২০১৮ ইং

ন্যাশনাল ব্যাংকে পর্যবেক্ষক নিয়োগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে -বাংলাদেশ ব্যাংক

শীর্ষ মিডিয়া ৫ অক্টোবর ঃ   ব্যাংক কোম্পানি আইন, ১৯৯১ (সংশোধন ২০১৩) লঙ্ঘন, আর্থিক অবস্থার অবনতি, নানা ঋণ অনিয়ম এবং শীর্ষ নির্বাহীর হঠাৎ পদত্যাগের পরিপ্রেক্ষিতে বেসরকারি ন্যাশনাল ব্যাংকের (এনবিএল) পর্ষদে পর্যবেক্ষক নিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক গতকাল শনিবার বন্ধের মধ্যে জরুরি বিবেচনায় সিনিয়র ম্যানেজমেন্ট টিমের (গভর্নর, চার ডেপুটি গভর্নর ও কনসালটেন্ট নিয়ে গঠিত) এক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয় বলে উচ্চপর্যায়ের সূত্রে নিশ্চিত হওয়া গেছে। গভর্নর আতিউর রহমান এতে সভাপতিত্ব করেন। সূত্র জানায়, এই সিদ্ধান্ত ব্যাংক খোলার পর কার্যকর হবে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সূত্রটি আরও জানায়, গত কয়েক বছর এনবিএলের আর্থিক পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে। ব্যাংকটির পর্ষদে শিকদার
পরিবারের পাঁচজন সদস্য রয়েছেন। তাঁরা হলেন ব্যাংকটির চেয়ারম্যান জয়নুল হক শিকদার, তাঁর স্ত্রী মনোয়ারা শিকদার, কন্যা পারভীন হক শিকদার এবং পুত্র রিক হক শিকদার ও রন হক শিকদার। ব্যাংক কোম্পানি আইন অনুসারে কোনো ব্যাংকে এক পরিবারের দুজনের
বেশি পরিচালক থাকতে পারেন না। ২০১৩ সালে জাতীয় সংসদে এই আইন পাস হওয়ার পর বাংলাদেশ ব্যাংক এক বছরের সময় দিয়েছিল তা বাস্তবায়নে। সেই অনুসারে গত ২২ জুলাই এর মেয়াদ শেষ হয়েছে। কিন্তু এনবিএলের পর্ষদে এখনো এক পরিবারের পাঁচজন সদস্য রয়েছেন।

এদিকে সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্যাংকের বিশেষ পরিদর্শনে এনবিএলের কয়েকটি শাখাতে বড় ধরনের ঋণ অনিয়ম চিহ্নিত হয়েছে। পর্ষদেও নিয়মনীতি উপেক্ষার তথ্য পরিদর্শনে বের হয়ে এসেছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংক এরই পরিপ্রেক্ষিতে ব্যাংকটিতে কিছু দিকনির্দেশনা দিয়েছে। এর আগেও বাংলাদেশ ব্যাংক ব্যাংকটিকে আরও কিছু বিষয়ে নির্দেশনা দিয়েছিল, কিন্তু সেগুলো যথাযথভাবে বাস্তবায়ন করেনি ব্যাংকটি।