Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ১১:৩৭ ঢাকা, বুধবার  ২১শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ
ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ

‘নির্বাচন দিন, শেখ হাসিনার সরকার জিতলে মেনে নেবো’ – মওদুদ

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে ’লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড’ ছিলনা। এই নির্বাচনে সরকারদলীয় প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভি বেশি সুবিধা পেয়েছেন। সরকারের পুলিশ, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, প্রশাসন সবইতো তাদের বন্ধুপ্রতিম। আর বিএনপির প্রার্থীর সাথে তো তারা এধরনের আচরণ করেনি। তিনি সরকারের উদ্দেশে বলেন, নাসিক নির্বাচনে যদি জনগণ আপনাদের ভোট দিয়েই থাকে তাহলে ভয়ের কী? প্রশাসন, আইনশৃঙ্খল বাহিনী নিরপেক্ষ করে দিয়ে একটি তত্বাবধায়ক বা নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকার গঠন করুন। এখনই নির্বাচন দিন। যারা জিতবে তারা দেশ পরিচালনা করবে। এটা তো সরকারের জন্য সবচেয়ে বড় সুযোগ। এই নির্বাচনে শেখ হাসিনার সরকার জিতলে আমরা মেনে নেবো। আর আমরা জিতলে তারা মেনে নেবে।

শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে এক আলোচনা সভায় মওদুদ আহমদ এসব বলেন। ‘স্বাধীন, নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠনে বিএনপির প্রস্তাব : নাসিক নির্বাচন’ শীর্ষক এই আলোচনা সভার আয়োজন করে নাগরিক ফোরাম।

নাগরিক ফোরামের সভাপতি আবদুল্লাহিল মাসুদের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন- বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, বিএনপি নেতা অ্যাডভোকেট ফাহিমা নাসরিন মুন্নী প্রমুখ।

মওদুদ আহমদ বলেন, বাংলাদেশের বর্তমানে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে- গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনা। আর গণতন্ত্র ফেরাতে স্বাধীন শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন দরকার। বিএনপি গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে বলেই নিরপেক্ষ ইসি গঠনে প্রস্তাব দিয়েছে। বর্তমানে রাষ্ট্রপতি যে আলোচনার উদ্যোগ নিয়েছে তা ইতিবাচক এবং এই আলোচনা অব্যাহত রাখা দরকার। যাতে সবাই মিলে মতৈক্য হওয়া যায় নিরপেক্ষ ইসি গঠনে।

তিনি বলেন, আজ বাংলাদেশে কোনো রাজনীতি নেই। যা আছে অপরাজনীতি এবং একদলীয় রাজনীতি। বিরোধী দলের কোনো প্রয়োজনীয়তাই তারা বোধ করছেনা। বিরোধীদের নিশ্চিহ্ন করতে সমস্ত আয়োজন তারা করেছে। এ জন্যই কি আমরা মহান মুক্তিযুদ্ধ করেছিলাম। অথচ আমরা লন্ডনে থেকেও স্বাধীন পূর্ব পাকিস্তান গঠনের লক্ষ্যে কাজ করেছি। তখন আওয়ামী লীগও কোনো আন্দোলন করতে পারেনি। এরপর দেশের পর্যায়ক্রমে বহু আন্দোলন হয়েছে। অতপর আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার সময় আমি বিদেশ থেকে আইনজীবি নিয়ে আসি। বঙ্গবন্ধুর মুক্তির ব্যাবস্থা করি।

মওদুদ আহমদ বলেন, ১৯৭৪ সালে বঙ্গবন্ধুর সময়ই আমাকে জেল খাটতে হয়েছে। কারণ তিনি বাকশাল প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। আমরা তার বিরোধীতা করেছিলাম। আর আমাকেই জেল খাটতে হয়েছে।

মওদুদ বলেন, গণতন্ত্র ফেরানোই বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। বর্তমান সরকার দেশের সব মূল্যবোধ ধ্বংস করে ফেলেছে। তারা নতুন কোনো মূল্যবোধ তৈরি করতে পারেনি। গণতন্ত্র ও রাজনৈতিক চর্চা, বিচার বিভাগের স্বাধীনতা অর্থাৎ কোনো ক্ষেত্রেই তারা মূল্যবোধ দেখাতে পারেনি।