ব্রেকিং নিউজ

রাত ১:৫৩ ঢাকা, শুক্রবার  ২১শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

‘নির্বাচনে কে অযোগ্য হবেন সংসদে বলা যায় না’ ইনুর বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় -সুরঞ্জিত

‘২০১৯ সালের নির্বাচনে খালেদা জিয়ার অংশগ্রহণের সুযোগ থাকবে না’ – তথ্যমন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনুর এই বক্তব্যের সমালোচনা করেছেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য, প্রবীণ পার্লামেন্টারিয়ান সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত।

সোমবার জাতীয় সংসদে বাজেট আলোচনায় ইনুর বক্তব্যকে ইঙ্গিত করে সুরঞ্জিত বলেছেন, ‘‘কে নির্বাচন করতে পারবেন কী পারবেন না, এই সিদ্ধান্ত সংসদ দিতে পারে না। আগে থেকেই রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত দিয়ে কাউকে নির্বাচনে অযোগ্য ঘোষণা করা যায় না। এটার জন্য আদালত, সুপ্রিম কোর্ট, নির্বাচন কমিশন রয়েছে। মাননীয় মন্ত্রীরা, আপনারা যে যেই দলই করুন না, আপনাদের ভিন্ন এজেন্ডা থাকতে পারে। কিন্তু সংসদে যখন আপনারা এই ধরনের কথা বলেন, তখন এর দায়দায়িত্ব প্রধানমন্ত্রীকেও নিতে হয়। আমরাও বিব্রত হই।’’

প্রসঙ্গত, শনিবার বাজেট আলোচনায় খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে হাসানুল হক ইনু বলেছিলেন, ‘‘২০১৯ সালের নির্বাচনে আপনার অংশগ্রহণের সুযোগ থাকবে না। নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে যতোই করমর্দন করুন না কেন, ইতিহাসে আপনার রাজনৈতিক ভাগ্য নির্ধারিত হয়ে গেছে। আপনাকে রাজনীতির বাইরেই থাকতে হবে। পরিণতির জন্য প্রস্তুত হোন।’’

জাসদের ইনুর এই বক্তব্যের বিষয়ে আওয়ামী লীগের সুরঞ্জিত বলেন ‘‘মন্ত্রীদের বুঝতে হবে, কথা বলার সময় তাদেরকে রুলস অব বিজনেস মানতে হয়। তাদের কোনো কথা থাকলে সেটি কেবিনেটে বলবেন। মনে রাখতে হবে, এটা প্রজাতন্ত্র, রাজতন্ত্র নয়। সংসদ কাউকে নির্বাচনে অযোগ্য করার সিদ্ধান্ত দিতে পারে না। আওয়ামী লীগ একটি প্রাচীণ গণতান্ত্রিক দল। প্রধানমন্ত্রী সারাদিন পরিশ্রম করছেন। গণতন্ত্রে বিশ্বাস করেন বলেই তিনি জীবনবাজি রেখে কাজ করছেন। উনি আইনের শাসনে বিশ্বাস করেন, তিনি নিজেকে যেমন অনেক উচ্চতায় নিয়ে গেছেন, জাতিকেও উচ্চতায় নিয়েছেন। এক সময় এইভাবে রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত দিয়ে অযোগ্য করা হতো। বঙ্গবন্ধু এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ গড়েছিলেন ’’

তিনি আরো বলেন, ‘‘খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া অরফানেজ ও জিয়া ট্রাস্টে দুর্নীতির দুটি মামলা চলছে। বিচার হবেই। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার বিচার হবে। সেখানে কার কী বিচার হবে, সেটি আদালতের বিষয়। বিচারে যা হবার হবে। কিন্তু তা নিয়ে সংসদে কোনো মন্ত্রী আগাম এভাবে বলতে পারেন না।’’ সুরঞ্জিতের এই বক্তব্য শেষ হওয়ার পর সংসদে আসেন হাসানুল হক ইনু। তবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ সময় সংসদে ছিলেন।
অধিবেশন শেষে সুরঞ্জিত ইত্তেফাককে বলেন ‘‘ইনু যেটি বলছে, সেটি তিনি সংসদে এভাবে বলতে পারেন না। বলা তার উচিত হয়নি। দেশে আদালত আছে, এটা বিচারিক বিষয়। আমি তো আগেই রায় বলে দিতে পারি না। এই কারণে সংসদে আমার কথাগুলো বলা।’’

উল্লেখ্য, হাসানুল হক ইনুর বক্তব্যের পরদিন, রবিবার সংসদে বাজেট আলোচনায় আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমও সুরঞ্জিতের সুরে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন, ‘আপনি রাজনীতির মাঠে থাকুন, আপনি সুস্থ ও ভালো থাকুন। ২০১৯ সালে আপনার সঙ্গে মাঠে লড়াই করতে চাই। ওই নির্বাচনে আপনার সঙ্গে ফাইনাল খেলা হবে, আপনাকে হোয়াইটওয়াশ করা হবে। ফাঁকা মাঠে আর গোল দিতে ইচ্ছা করে না। আমরা খেলেই গোল দিতে চাই।’