Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ১২:০৩ ঢাকা, বুধবার  ১৪ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

রুহুল কবির রিজভী
বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, ফাইল ফটো

‘নির্বাচনী সহিংসতায় গ্রামীণ জনপদ বিরানভূমিতে পরিণত’

নির্বাচনী সহিংসতায় গ্রামীণ জনপদ বিরানভূমিতে পরিণত হয়েছে।

তৃতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে  কেন্দ্র করে বিভিন্ন এলাকায় পুলিশ বিএনপি নেতাকর্মীদের গণগ্রেফতার করছে বলে দাবি করেছে বিএনপি।

বিএনপির অভিযোগ, কয়েক জেলায় দলটির প্রার্থীদের বাড়িতে হামলা, গুলিবর্ষণ ও ভাংচুর করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। এতে প্রার্থীরা আতংকে রয়েছেন।

বৃহস্পতিবার বিকালে রাজধানীর নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এ অভিযোগ করেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

এ সময় কুমিল্লা, গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার প্রহলাদপুর ইউনিয়ন, নাটোর সদরের হালসা ইউনিয়ন পরিষদ, নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলা, রাজবাড়ীর পাংশা, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল, লক্ষীপুর এবং সিরাজগঞ্জ জেলাসহ বিভিন্ন স্থানের সহিংসতার চিত্র তুলে ধরা হয়।

রিজভী বলেন,পুলিশ, বিজিবি, নির্বাচনী কর্মকর্তা ও আওয়ামী সন্ত্রাসীরা মিলে প্রথম দু’দফার পর তৃতীয় ধাপের নির্বাচনে আরও বেপরোয়া হয়ে উঠেছে।

তার অভিযোগ, নির্বাচনের দিন ভোট কেন্দ্রে না যেতে বিএনপি  প্রার্থী, এজেন্ট ও সমর্থকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে আওয়ামী লীগ ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার লোকজন হুমকি দিচ্ছে।

নির্বাচনী সহিংসতায় গ্রামীণ জনপদ বিরানভূমিতে পরিণত হয়েছে দাবি করেন পরিস্থিতিকে মুক্তিযুদ্ধের সময়ের সঙ্গে তুলনা করেন রিজভী।

তার দাবি, প্রাণহানি ঠেকাতে নির্বাচন কমিশন কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। বরং কমিশনের উচ্চপদস্থরা সরকারি দলের প্রার্থীদেরকে বিজয়ী করে সরকারকে তা উপহার দিচ্ছে।

গত দুই দফা ইউপি নির্বাচনে ৫০ জনের বেশি নিহতের ঘটনায় নির্বাচন কমিশনকে জনতার আদালতে বিচারের হুমকি দেন রিজভী।
 
সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, ওলামা দলের সভাপতি হাফেজ আব্দুল মালেক, ছাত্রদলের সহ-সভাপতি নাজমুল হাসান, তরিকুল ইসলাম টিটু, স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম-সম্পাদক আমিনুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।