Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ৯:০১ ঢাকা, বুধবার  ১৪ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

সাবেক নির্বাচন কমিশনার অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এম সাখাওয়াত হোসেন

নির্বাচনটি তেমন সুষ্ঠু হয়নি – এম সাখাওয়াত হোসেন

সাবেক নির্বাচন কমিশনার অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এম সাখাওয়াত হোসেন সার্বিকভাবে বাংলাদেশের পৌর নির্বাচন তেমন সুষ্ঠু হয়নি বলে মন্তব্য করেছেন।

নির্বাচনের ফল বিশ্লেষণে মিঃ হোসেন বলেন নির্বাচন কেমন হল তা বলার এখনও সঠিক সময় হয়নি। তবে এখন পর্যন্ত যেটুকু দেখা যায় “প্রচুর সহিংসতা, মারামারি হয়েছে, বুথ দখল হয়েছে, ব্যালট পেপার ছিনতাই হয়েছে।”

সব মিলিয়ে “নির্বাচনটি তেমন সুষ্ঠু হয়নি যেমনটি হওয়ার কথা ছিল” বলে মনে করেন মি. হোসেন।

পূর্ব অভিজ্ঞতার দিক বিবেচনায় সাবেক এ নির্বাচন কমিশনার বলেন আওয়ামী লীগ এর সবসময় কোর সাপোর্ট ছিল ৩৩-৩৪ শতাংশ এবং বর্তমান অবস্থায় বলা যায় বিএনপির সেই কোর সাপোর্টও নেই।

নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা প্রসঙ্গে তিনি বলেন কমিশন চেষ্টা করেছে তাদের পূর্ববর্তী অবস্থা থেকে বের হয়ে আসতে কিন্তু সেটা পুরোপুরি পারেনি, কিছু কিছু জায়গায় তাদের আরও কঠোর হওয়া দরকার ছিল কিন্তু তারা সেটা পারেনি।

বেসরকারি ফলাফল সবশেষ পাওয়া পর্যন্ত ২৩৩ টির মধ্যে ১৭৫ টির বেশি পৌরসভায় জয় লাভ করে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীদের এগিয়ে থাকতে দেখা যায় যেখানে মূল প্রতিদ্বন্দ্বী দল বিএনপি জয় লাভ ২১ টির মত পৌরসভায়।

বুধবার নির্বাচনের দিন নানা রকমের অনিয়মের অভিযোগে প্রধান দুই রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ এবং বিএনপি পরস্পরকে দোষারোপ করেছে।

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সহিংসতায় একজন নিহত হয়েছে।

এছাড়া রাতে কুমিল্লার দাউদকান্দি পৌরসভার ৯ নং ওর্য়াড থেকে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত কাউন্সিলর এবং উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি মো. রকিব উদ্দিন দুর্বৃত্তদের ছোঁড়া গুলিতে আহত হন বলে স্থানীয় গণমাধ্যমসূত্রে জানা যায়।

এর মাঝে নির্বাচনকে ‘প্রহসন’ হিসেবে উল্লেখ করে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, “প্রতিটি পৌরসভায় কারচুপি হয়েছে, দখলদারি হয়েছে, এবং তা হয়েছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সামনেই।”

কিন্তু সে অভিযোগ অস্বীকার করে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা মাহবুবুল আলম হানিফ বলেন, এখন পর্যন্ত বাংলাদেশে যত স্থানীয় সরকার নির্বাচন হয়েছে, তার মধ্যে আজকের নির্বাচন ছিল সবচেয়ে “শান্তিপূর্ণ, অবাধ ও সুষ্ঠু”। সূত্রঃ বিবিসি বাংলা

http://www.bbc.com/bengali/news/2015/12/151230_election_analysis