ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৫:০৫ ঢাকা, শুক্রবার  ২১শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ
রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ

“নির্ণয় ছাড়াই হৃদরোগে মারা যাওয়া উদ্বেগের বিষয়”

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ একটি মহৎ পেশা হিসেবে অঙ্গীকার ও নিষ্ঠার সঙ্গে রোগীদের স্বাস্থ্যসেবা প্রদানে চিকিৎসকদের প্রতি আহ্বান জানান।

আজ সন্ধ্যায় নগরীর এক হোটেলে ‘৬ষ্ঠ কার্ডিওলজি অ্যান্ড কার্ডিয়াক সার্জারি আন্তর্জাতিক সম্মেলন এবং ৪র্থ ঢাকা লাইভ ২০১৭’-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি বলেন, বিশ্বমানের পাশাপাশি আধুনিক চিকিৎসার প্রসার এবং স্বাস্থ্যসেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে সরকারি-বেসরকারি যৌথ উদ্যোগ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

তিনি হৃদরোগ প্রতিরোধের জন্য জনসচেতনতা সৃষ্টিতে চিকিৎসক, নীতি নির্ধারক, স্বাস্থ্যকর্মী, মিডিয়া এবং সংশ্লিষ্ট সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

ঝুঁকিপূর্ণ রোগের ব্যাপারে বর্তমান সরকারের সচেতনতামূলক কার্যক্রম তুলে ধরে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘গবেষণা ও উদ্ভাবনা বিপজ্জনক রোগের স্বাস্থ্য ঝুঁকি হ্রাসে সহায়ক।’

গ্রামীণ এলাকায় বেশিরভাগ লোকই রোগ নির্ণয় ছাড়াই হৃদরোগে মারা যাওয়ায় নীতি নির্ধারকদের জন্য হৃদরোগ একটি মারাত্মক উদ্বেগের বিষয়।

রাষ্ট্রপতি বলেন, হৃদরোগে আক্রান্তদের চিকিৎসা সেবায় জেলা পর্যায়ের সরকারি হাসপাতালগুলো উন্নত ও পর্যাপ্ত কার্যকর চিকিৎসা সুযোগ-সুবিধার পাশাপাশি সরকারি সকল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বিশেষায়িত সুসজ্জিত কার্ডিওলজি ও কার্ডিয়াক সার্জারি বিভাগ স্থাপন করা হয়েছে। এতে কার্ডিয়াক ওটি ও ক্যাথল্যাবসহ সকল সুবিধা রয়েছে।

আবদুল হামিদ বলেন, হৃদরোগের চিকিৎসা ব্যয়বহুল হওয়ায় সাধারণ মানুষ আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞানের সুযোগ নিতে পারেন না এবং দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর বেশিরভাগ মানুষ চিকিৎসার জন্য এ ধরনের বিপুল ব্যয়ের সক্ষমতা নেই।

তিনি বলেন, এজন্য আমরা ‘প্রতিরোধ রোগের চিকিৎসার চেয়ে উত্তম’ এই বৈশ্বিক নীতির প্রতি গুরুত্ব দিয়েছি।

রাষ্ট্রপতি তাঁর ভাষণের শুরুতে আগামীকাল বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে দেশে ও বিদেশে বসবাসকারী সকল বাংলাদেশী নাগরিকদের উষ্ণ অভিনন্দন জানান।

সার্বভৌম দেশ অর্জনে অসামান্য অবদানের জন্য তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি এবং দেশের স্বাধীনতা অর্জনে লাখো শহীদের আত্মত্যাগের জন্য তাঁদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানান।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, ল্যাব এইড কার্ডিয়াক হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং সম্মেলনের প্রধান পৃষ্টপোষক ডা. এ এম শামীম, দক্ষিণ এশীয় দেশগুলোর বিশিষ্ট হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ, দেশী ও বিদেশী প্রতিনিধি, রাষ্ট্রপতির সংশ্লিষ্ট সচিবগণ এবং সামরিক ও বেসামরিক উর্ধতন কর্মকর্তারা সম্মেলনে অংশ নেন।

ল্যাবএইড কার্ডিয়াক হাসপাতাল আয়োজিত এ সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন প্রফেসর ডা. আবদুজ জাহের।