শীর্ষ মিডিয়া

ব্রেকিং নিউজ

রাত ১০:২৫ ঢাকা, সোমবার  ১৭ই ডিসেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

নিরাপত্তা ঝুঁকির কারণে বায়ার্স ফোরামের বৈঠক নিয়ে অনিশ্চিতয়তা

বিদেশী দুই নাগরিক হত্যার ঘটনা প্রায় এক মাস হতে চলেছে। এর মধ্যে আবারও তাজিয়া মিছিলে বোমা হামলায় একজন নিহত হয়েছে। ফলে বিদেশীদের বাংলাদেশে চলাফেরার ক্ষেত্রে নিজ নিজ দেশের নাগরিকদের আরও কঠোরভাবে সতর্ক করেছে বেশ কয়েকটি দেশ। এ অবস্থায় নিরাপত্তা ঝুঁকির কারণে আগামী মাসের ক্রেতা প্রতিনিধিদের সংগঠন বায়ার্স ফোরামের বৈঠক অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। এ ছাড়া পরিস্থিতি এখনও স্বাভাবিক না হওয়ায় ক্রেতারা বাংলাদেশে না এসে তারা তাদের নিজ নিজ দেশে বৈঠক করতে ডাকছেন উদ্যোক্তাদের। এতে অনেকটা চাপের মধ্যে পড়েছেন দেশের কারখানা মালিকরা। বিজিএমইএ ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। এদিকে দেশে অবস্থানরত পোশাক ক্রেতা প্রতিষ্ঠানের সব কর্মকর্তাকে আগের মতোই সতর্কতার সঙ্গে চলাফেরা করতে তাদের প্রধান কার্যালয় থেকে বার্তা পাঠানো হয়েছে।
জানা গেছে, বায়ার্স ফোরামের নিয়মিত বৈঠক হয় প্রতি মাসের প্রথম সপ্তাহের প্রথম সোমবার। সে অনুযায়ী ২রা নভেম্বর বৈঠক করার কথা সংগঠনটির। কিন্তু একের পর এক হত্যাকাণ্ডে তাদের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে। ফলে তারা নিরাপত্তা ঝুঁকিতে ভুগছে। এমন পরিস্থিতিতে আগামী সোমবার বৈঠক আয়োজন করা নিয়ে বেশ দ্বিধাদ্বন্দ্বে পড়েছে বলে একাধিক সূত্রে জানা গেছে। সূত্র জানায়, বিদেশী দুই নাগরিক খুনের ঘটনায় এ মাসের বৈঠক স্থগিত করা হয়েছে। সাম্প্রতিক তাজিয়া মিছিলে বোমা হামলার ঘটনায় পরিস্থিতি আরও জটিল আকার ধারণ করেছে। ফলে আগামী মাসের সোমবারের বৈঠকটি অনেকটা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। এক সপ্তাহেরও কম সময়ের ব্যবধানে দুই বিদেশী নাগরিক খুন হওয়ায় ৫ই অক্টোবরের নিয়মিত বৈঠকটি স্থগিত করে বায়ার্স ফোরাম। গুলশানে এইচঅ্যান্ডএমের কার্যালয়ে মাসিক বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আবারও এক মাসেরও কম সময়ের ব্যবধানে তাজিয়া মিছিলে আরেকটি হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় আরও আশঙ্কা বোধ করছেন সংগঠনটি। ফলে তারা বাংলাদেশ এড়িয়ে চলার চেষ্টা করছেন। এতে আগামী মওসুমের পোশাক তৈরির কার্যাদেশের ওপর বিরূপ প্রভাব পড়তে পারে বলে হতাশা প্রকাশ করেন শিল্পমালিকরা।