ব্রেকিং নিউজ

রাত ১১:২০ ঢাকা, সোমবার  ২৪শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

কামাল
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, ফাইল ফটো

‘নিরাপত্তার দিক দিয়ে অনেক শক্ত অবস্থানে বাংলাদেশ’- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন বলেছেন, বর্তমান সরকার সন্ত্রাস ও দুর্নীতির মূলোৎপাটন করতে বদ্ধপরিকর। সন্ত্রাস নির্মূলে সরকার ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি অনুসরণ করছে উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী বলেন, পৃথিবীর অনেক দেশ সন্ত্রাস দূরীকরণে হিমশিম খেলেও বাংলাদেশ নিরাপত্তার দিক দিয়ে অনেক শক্ত অবস্থানে রয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আজ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক প্রফেসর ড. এএফএম রেজাউল করিম সিদ্দিকীর নৃশংস হত্যাকান্ডের প্রতিবাদ এবং দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তনে শিক্ষক-ছাত্র ও সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একথা বলেন। শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো: শাহরিয়ার আলম অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন।

তিনি বলেন, ‘কিছু কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা আমাদের মনে করিয়ে দেয়, অতীতের মত জঙ্গী সংগঠনগুলোর অপতৎপরতা এখনও চলছে। বাংলাদেশ যখন উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে বিশ্বে তার অবস্থান গড়ছে তখনই কিছু দেশি-বিদেশি ষড়যন্ত্রকারী এ দেশকে পিছিয়ে দিতে তৎপর হয়ে উঠছে।’

আসাদুজ্জামান খাঁন বলেন, বর্তমান সরকার ষড়যন্ত্রকারীদের সকল চক্রান্ত নস্যাৎ করে দেশে কাঙ্খিত সময়ের মধ্যে সকল হত্যাকান্ডের বিচার প্রক্রিয়া সমাধা করতে যা যা করা দরকার করবে। তিনি সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন ঘটনার প্রেক্ষিতে রাজশাহী অঞ্চলের নিরাপত্তা বাড়াতে দৃশ্যমান টহল বাড়ানোর আশ্বাস দেন।

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, বাংলাদেশ ভিশন-২০২১ অর্জনের পথে অনেক দূর এগিয়ে গেছে। আমাদের সামনে-২০৪১ সাল অপেক্ষা করছে। এদেশকে একটি উন্নত দেশে পরিণত করার লক্ষ্যে জাতীয় লক্ষ্যের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ করতে শিক্ষানীতিতে মৌলিক পরিবর্তন করা হয়েছে। তবে শিক্ষকমন্ডলী শিক্ষার লক্ষ্যকে বাস্তবায়ন করতে মূল ভূমিকা পালন করবে । যদি শিক্ষকরাই নিরাপত্তাহীনতায় ভোগেন তাহলে কিভাবে তাঁরা অর্পিত দায়িত্ব পালন করবেন ? শিক্ষামন্ত্রী শিক্ষাকে এগিয়ে নিতে তাঁদের জীবনের নিরাপত্তা বিধানে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীসহ সকলকে একযোগে কাজ করার আহবান জানান।

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো: শাহরিয়ার আলম বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষক হত্যার ঘটনা জাতির বিবেককে নাড়া দিয়েছে। তাই অতি শিগগিরই হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন করে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি বিধানের লক্ষ্যে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, আমাদের সাহস হারালে চলবে না, নাশকতারোধে হুমকিদাতাদের সকল ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করতে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে হবে।

রাবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক শহীদুল্লাহ-র সভাপতিত্বে সমাবেশে বেগম আখতার জাহান এমপি, আয়েন উদ্দিন এমপি, মহাপুলিশ পরিদর্শক একেএম শহীদুল হক, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক ফেডারেশনের সভাপতি প্রফেসর ড. মো: ফরিদ উদ্দিন আহমেদ এবং মহাসচিব প্রফেসর ড. এএসএম মাকসুদ কামাল, রাবির উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহম্মদ মিজানউদ্দিন, উপ উপাচার্য প্রফেসর ড. চৌধুরী সারওয়ার জাহান ও রাবি ইংরেজি বিভাগের সভাপতি ড. এএফএম মাসউদ আখতার সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন।

সমাবেসে সন্ত্রাসী হামলায় নিহত রাবি শিক্ষক প্রফেসর ড. এএফএম রেজাউল করিম সিদ্দিকীর কন্যা রেজুয়ানা হাসিন শতভি তাঁর বাবার প্রকৃত খুনীদের চিহ্নিত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।