Press "Enter" to skip to content

নিপীড়িত কাশ্মীরিদের পাশে আছি : পাক প্রধানমন্ত্রী

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, ভারতীয় নিপীড়নের শিকার হওয়া জম্মু ও কাশ্মীরের লোকজনের দুর্দশায় তার মন আজ দুঃখ ভারাক্রান্ত।

দেশটির স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে দেয়া এক বিবৃতিতে পাকিস্তান কাশ্মীরি ভাইদের পাশে থাকবে বলে নিশ্চিত করেন তিনি।

সাবেক এ কিংবদন্তি ক্রিকেট তারকা বলেন, স্বাধীনতা দিবস মানুষের জন্য আনন্দের সুযোগ এনে দেয়। কিন্তু অধিকৃত কাশ্মীরে ভারতীয় দমনপীড়নের শিকার ভাইদের দুর্দশায় আমরা দুঃখ ভারাক্রান্ত।

এদিকে কাশ্মীরের সাংবিধানিক বিশেষ স্বায়ত্তশাসনের মর্যাদা কেড়ে নিয়ে রাজ্যটিকে ভারতের নিজের ভূখণ্ড হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করাকে দক্ষিণ এশিয়ার শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য বড় হুমকি আখ্যায়িত করে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের মনোযোগ আকর্ষণ করেছে পাকিস্তান।

ভারতের এ অবৈধ সিদ্ধান্ত নিয়ে বৈঠকে বসার জন্য নিরাপত্তা পরিষদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ইসলামাবাদ। মঙ্গলবার নিরাপত্তা পরিষদ বরাবর লেখা এক চিঠিতে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরাইশি এ আহ্বান জানিয়েছেন।

চিঠিতে তিনি বলেন, যুদ্ধের উসকানি দেবে না পাকিস্তান। তাই বলে ভারত যেন আমাদের সংযমকে দুর্বলতা না ভাবে।

কোরাইশি বলেন, ভারত যদি ফের শক্তি প্রয়োগ করার পথে যায়, আত্মরক্ষার জন্য সর্বশক্তি নিয়ে পাকিস্তান জবাব দিতে বাধ্য হবে। এমন বিপজ্জনক পরিস্থিতির মুখে পাকিস্তান নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকের অনুরোধ করছে।

কাশ্মীরের স্বায়ত্তশাসনের অধিকার কেড়ে নেয়ার পর রাজ্যটির মর্যাদা পুনর্বহালের চেষ্টা হিসেবে কূটনৈতিক তদবিরে জোর দিয়েছে পাকিস্তান।

ইতিমধ্যে ভারতীয় কূটনৈতিককে বহিষ্কার করেছে ইসলামাবাদ। দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্যিক ও আন্তঃসীমান্ত পরিবহনও বাতিল করেছে।

কিন্তু বিশ্লেষকরা বলছেন, এতে দিল্লিকে তার সিদ্ধান্ত থেকে এতটুকু নাড়াতে পারবে বলে মনে হচ্ছে না।

চলতি সপ্তাহের শুরুতে ভারতকে চ্যালেঞ্জ জানাতে ব্যর্থ হওয়ায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সমালোচনা করেছেন ইমরান খান।

হিটলারের নাৎসিবাদের মতো ভারতীয় হিন্দু জাতীয়তাবাদের সম্প্রসারণের বিরুদ্ধে চোখ বন্ধ রাখায় তিনি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের নিন্দা জানান।

শেয়ার অপশন: