ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৬:১৩ ঢাকা, শনিবার  ১৭ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

নিজ বক্তব্যে অনড় এ কে খন্দকার

দীর্ঘ নীরবতা ভাঙলেন মুক্তিযুদ্ধের উপ-সেনাপতি এবং সাবেক পরিকল্পনা মন্ত্রী এ কে খন্দকার বীরউত্তম। সমালোচনা, চাপ আর মামলার পরও জানালেন নিজ বক্তব্যে অনড় থাকার কথা। সাড়ে তিন মাস আগে তার লেখা ‘১৯৭১: ভেতরে বাইরে’ বই প্রকাশিত হলে তোলপাড় শুরু হয় চারদিকে। তার তীব্র সমালোচনায় মুখর হন ক্ষমতাসীন দলের নেতারা। এমনকি তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগে ব্যবস্থা নেয়ারও দাবি জানান তারা। সেক্টর কমান্ডারস্‌ ফোরাম থেকেও পদত্যাগ করেন এ কে খন্দকার। সবচেয়ে বেশি সমালোচনা হয় তার বইয়ের একটি তথ্য নিয়ে। যেখানে তিনি লেখেন, বঙ্গবন্ধু ৭ই মার্চের ভাষণে ‘জয় পাকিস্তান’ বলেছিলেন। সোমবার বেসরকারি যমুনা টেলিভিশনে প্রচারিত এক সাক্ষাৎকারে এ কে খন্দকার জানান, নিজ বক্তব্যে তিনি অনড় রয়েছেন। বক্তব্য থেকে সরে আসবেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সরে আসার তো কথা হচ্ছে না। যারা পড়েছেন তারা মতামত দেবেন। কারও কাছে আমার বই খারাপ লাগতে পারে, কারও কাছে ভাল লাগতে পারে। তিনি বলেন, ১৯৭১ সালের মার্চ মাসে সেনা কর্মকর্তারা যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত থাকলেও রাজনৈতিক নেতৃত্বের কাছ থেকে কোন নির্দেশনা পাওয়া যায়নি। স্বাধীনতার ঘোষণার ব্যাপারে তিনি বলেন, প্রথমে বেতারের একজন টেকনিশিয়ান ঘোষণা দেন। জিয়াউর রহমান ছিলেন দ্বিতীয় ব্যক্তি। তার প্রথম ঘোষণায় অবশ্য ভুল ছিল। দ্বিতীয় ঘোষণায় ভুল সংশোধন করা হয়।