ব্রেকিং নিউজ

সকাল ১১:৩৫ ঢাকা, সোমবার  ২৪শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

নার্সদের নিয়োগ পরীক্ষা বয়কট-বিক্ষোভ

বাংলাদেশ কর্মকমিশন- বিপিএসসি আয়োজিত নিয়োগ পরীক্ষা বয়কট করে ঢাকা নার্সিং কলেজের সামনে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করছেন আন্দোলনরত নার্সরা।

কর্মকমিশনের পরীক্ষা পদ্ধতি বাতিল করে ব্যাচ ভিত্তিক নিয়োগের দাবিতে শুক্রবার সকাল থেকে তারা এই কর্মসূচি পালন করছেন।

এর আগে যে কোনো মূল্যে নিয়োগ পরীক্ষা প্রতিহতের ঘোষণা দিয়েছিলেন আন্দোলনরত নার্স নেতৃবৃন্দ।

আন্দোলন প্রসঙ্গে ডিপ্লোমা বেকার নার্সেস অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব ফারুক হোসেন বলেন, স্বাস্থ্যমন্ত্রী আমাদের দাবি মেনে নেয়ার কথা দিয়ে কথা রাখেননি। আমাদের দাবি আদায় করতে হলে শুক্রবারের বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের (বিপিএসসি) পরীক্ষা প্রতিহত করতে হবে।

এদিকে নিয়োগ পরীক্ষা বাতিলে নার্সদের স্বাস্থ্য মন্ত্রীর বাসভবন ঘেরাও কর্মসূচি সরিয়ে দেয়ার সময় পুলিশের সঙ্গে বাক-বিতণ্ডার জের ধরে ১৪০০ নার্সের বিরুদ্ধে বুধবার রাতে ধানমণ্ডি থানায় মামলা দায়ের করেছে পুলিশ।

এর মধ্যে দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা হলেন- রুকসানা বেগম ও নয়ন কুমার।

বুধবারের পুলিশি হামলার পর থেকে দু’জন নার্স নিখোঁজ রয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন বাংলাদেশ বেসিক নার্সেস সোসাইটির সভাপতি রাজিব কুমার বিশ্বাস।

হামলা ও গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা জানিয়ে বাংলাদেশ ডিপ্লোমা বেকার নার্সেস অ্যাসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ বেসিক গ্র্যাজুয়েট নার্সেস সোসাইটি লাগাতার ধর্মঘটের আহ্বান জানিয়েছে।

এদিকে নিয়োগ পরীক্ষা বাতিলে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বাসভবন ঘেরাও কর্মসূচিতে নার্সদের উপর পুলিশি হামলার ঘটনায় বিচার বিভাগীর তদন্ত চেয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদন করা হয়েছে। আবেদনে এই ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ চাওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার আইনজীবী অ্যাডভোকেট জুলফিকার আলী জুনু হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এই রিট করেন। আগামী সপ্তাহে বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি মোহম্মদ ইকবাল কবিরের বেঞ্চে রিটে আবেদনের শুনানি হতে পারে।

নার্সদের দাবি-দাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বাসভবন ঘেরাও কর্মসূচি নিয়ে রিট আবেদনে বলা হয়, নার্সদের ওপর হামলার ঘটনায় আইনশৃংখলা বাহিনীর পাশাপাশি বহিরাগতরাও অংশ নিয়েছে। এই বহিরাগতরা কারা তা খুঁজে বের করতে আবেদন নির্দেশনা চাওয়া হয়।

রিটে স্বরাষ্ট্রসচিব, স্বাস্থ্যসচিব, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক, ডিএমপি কমিশনার ও ধানমণ্ডি থানার ওসিকে বিবাদী করা হয়েছে।