ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৯:১৪ ঢাকা, বুধবার  ১৯শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

রুহুল কবির রিজভী
বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, ফাইল ফটো

না’গঞ্জে সুষ্ঠু নির্বাচন প্রশ্নে বিএনপির শঙ্কা

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনকে ঘিরে বিএনপির সকল স্তরের নেতাকর্মী, সমর্থকদের উৎসাহ উদ্দীপনা সৃষ্টি হলেও নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ হওয়া নিয়ে মানুষের সংশয় এখনও কাটেনি।

রিভভী বলেন, ভোটারদের ভীতিহীনভাবে ভোট প্রদান ও তাদের জানমালের নিরাপত্তার জন্য নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েন কত জরুরি সেটা নারায়ণগঞ্জের এক রিটার্নিং কর্মকর্তার কথাতেই পরিস্কারভাবে ফুটে উঠেছে। রিটার্নিং কর্তকর্তা বলেছেন, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের অর্ন্তভুক্ত সবগুলি কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ।

নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সোমবার সকালে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন রিজভী।

নির্বাচন কমিশনকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, শাসকদলের প্রার্থীদের গায়ের জোরে জেতানোর লক্ষ্যে আগামী ২২ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য নাসিক নির্বাচন যেন আগের নির্বাচনগুলোর মতো আরো একটি রক্তাক্ত অ্যাডভেঞ্চারে পরিণত না হয়। অতীতের অপর্কীতি মোচন করার জন্য নাসিক নির্বাচনে জনগণের ভোটাধিকার যেন ব্ল্যাকআউট না হয়, সেদিকে যথাযথ উদ্যোগ নেবেন। বিদায়ের প্রাক্কালে কমপক্ষে একটি ভালো উদাহরণ সৃষ্টি করুক।

বর্তমান সরকার যেহেতু বিনা ভোটে নির্বাচিত, সেহেতু সাধারণ মানুষের ন্যায্য দাবির আন্দোলনকে সহ্য করতে পারে না বলেও অভিযোগ করেন রিজভী।

তিনি বলেন, ‘মানুষের জমায়েত দেখলেই সরকার আঁতকে উঠে। যার ধারাবাহিকতায় গতকাল ময়মনসিংহে কলেজ সরকারিকরণের দাবিতে আন্দোলনরতদের দমন করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দু’জনকে গুলি ও লাঠিপেঠা করে নির্মমভাবে হত্যা করেছে। বিএনপি এই নিষ্ঠুর ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানোর পাশাপাশি এই হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের বিচার দাবি করছে।

সংবাদ সম্মেলনে রিজভীর সঙ্গে ছিলেন – বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, সহ-প্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম আলীম, সহ¬দফতর সম্পাদক মুনির হোসেন, নির্বাহী কমিটির সদস্য সাইফুল ইসলাম পটু প্রমুখ।