Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ৯:১১ ঢাকা, মঙ্গলবার  ২০শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

নরসিংদীর রায়পুরায়
নিহত জালাল মিয়া

নরসিংদীতে পুলিশ-গ্রামবাসী সংঘর্ষ, গুলিতে প্রবাসী নিহত

পুলিশের সঙ্গে গ্রামবাসীর সংঘর্ষের পরিস্থিতি দেখতে গিয়ে পুলিশের গুলিতে এক প্রবাসী নিহত হয়েছেন।

নরসিংদীর রায়পুরায় ওই সংঘর্ষের ঘটনায় পাঁচ পুলিশ সদস্যসহ ১৫ জন আহত হয়েছেন।

রোববার সাড়ে বিকাল ৪টার দিকে রায়পুরা উপজেলার চরাঞ্চল নিলক্ষা ইউনিয়নের দরিগাও শুটকিকান্দি গ্রামে বাউল গানের আসরকে কেন্দ্র করে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

পুলিশের গুলিতে নিহত জালাল মিয়া (২৬) দড়িগাও গ্রামের দুদু মিয়ার ছেলে। তিনি মালয়েশিয়ায় থাকতেন।

এছাড়া গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছে সামসু নামে এক গ্রামবাসী। সংঘর্ষে পাঁচ পুলিশ সদস্যসহ ১৫ জন আহত হন।

পুলিশ ও গ্রামবাসী সূত্রে জানা গেছে, রায়পুরা উপজেলার নিলক্ষায় ইউনিয়নের দরিগাও গ্রামে আবদুল খালেক শাহর ওরস উপলক্ষে বাউল গানের আসর আয়োজন করে তার ভক্তরা।

এদিকে নিলক্ষার দুদল গ্রামবাসীর মধ্যে দীর্ঘ দিন যাবৎ সংঘর্ষ চলে আসার কারণে বাউল গানের আসরের অনুমতি দেয়নি পুলিশ। কিস্তু স্থানীয় লোকজন পুলিশি বাধা উপেক্ষা করে বাউল গানের আসরের আয়োজন করে। এতে পুলিশ বাধা দিতে গেলে পুলিশের সঙ্গে গ্রামবাসীর কথা কাটাকাটি হয়।

একপর্যায়ে পুলিশ গ্রামবাসীর ওপর লাঠিচার্জ করে। পরে পুলিশ ও গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। এসময় উত্তেজিত গ্রামবাসী তিন পুলিশ সদস্যকে আটক করে রাখে। পরে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাদের উদ্ধার করে।

হট্টগোলের খবর পেয়ে বাড়ির বাইরে বের হয়ে আসেন জালাল মিয়া। এরই মধ্যে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ গুলি চালায়। এসময় পুলিশ গুলিতে ঘটনাস্থলেই মারা যান জালাল।

নিহত জালালের মা সাফিয়া খাতুন মাতম করতে করতে বলেন, ‘আমার মানিক বাড়িতে গুমায়া (ঘুমিয়ে) ছিল। হৈ চৈ শুনে ঘর থেকে বের হয়। এমন সময় পুলিশ তারে গুলি করে। সঙ্গে সঙ্গে আমার মানিকের নাড়ি-ভুড়ি বাইর হইয়া যায়। সে ছটফট করতে থাকে। তারপরও পুলিশের রহম হয় নাই।’