Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ২:০৫ ঢাকা, রবিবার  ১৮ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

নরসিংদীতে জঙ্গি অভিযান
কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্র্যান্সন্যাশনাল ইউনিটের (সিটিটিসি) প্রধান মনিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের তথ্য জানাচ্ছেন।

নরসিংদীতে জঙ্গি আস্তানায় সফল অভিযান: নিহত ২

নরসিংদীর শেখেরচর এলাকায় নিষিদ্ধ ঘোষিত জামায়াতুল মুজাহেদীন বাংলাদেশ (জেএমবি)’র জঙ্গি আস্তানায় সফল অভিযান সমাপ্ত। এসময় নিহত ২ জঙ্গির লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

জেলার শেখেরচর ভগীরথপুর এলাকায় জঙ্গি আস্তানায় অপারেশন ‘গার্ডিয়ান নট’ সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে। এসময় পাঁচতলা ওই ভবন থেকে একজন পুরুষ ও একজন নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকাল ৪টার দিকে কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্র্যান্সন্যাশনাল ইউনিটের (সিটিটিসি) প্রধান মনিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের এই তথ্য জানান ।

পুলিশের সোয়াত ও কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ইউনিটের (সিটিটিসি) সদস্যরা এ অভিযান চালায়।

সিটিটিসি’র প্রধান জানান, অভিযানে বাড়ির ভিতরে থাকা নব্য জেএমবি ২সদস্য নিহত হয়েছে। তাদের মধ্যে একজন পুরুষ ও একজন নারী। এ সময় বাড়ির ভিতরে কয়েকটি বোমার বিষ্ফোরণ ঘটায় জঙ্গিরা।

অপারেশন সমাপ্ত ঘোষণা করা হলেও জঙ্গি আস্তানা ঘিরে রেখেছে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘ঘটনাস্থল থেকে একটি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতরা পুলিশের গুলিতে মারা গেছে, নাকি নিজেরা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে মারা গেছে, তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।’

তিনি বলেন, ঘটনাস্থলে যেসব আলামত পাওয়া গেছে, সে অনুযায়ী নিহত জঙ্গিদের ব্যাপারে অনুসন্ধান চালানো হবে।

তিনি বলেন, ‘মাধবদীর গাংপাড় এলাকার জঙ্গি বাড়ির সাথে এ বাড়ির জঙ্গিদের যোগাযোগ ছিল। তারা একই গ্রুপের সদস্য।

মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘নরসিংদীর আরেকটি আস্তানা মাধবদীর গাংপাড় এলাকায়ও দিনের আলোতে অভিযান চালানো হবে। তাদেরকেও আত্মসমর্পণের আহ্বান জানানো হবে। আত্মসমর্পণ না করলে আমরা পরবর্তী অ্যাকশনে যাবো।’

তিনি বলেন, ‘মাধবদীর গাংপাড় এলাকায় ঘিরে রাখা আস্তানাতেও একাধিক জঙ্গি আছে। সেখানেও একজন নারী আছে।’

এর আগে সোমবার নব্য জেএমবির আস্তানা সন্দেহে নরসিংদীর মাধবদী ও শেখেরচরে দুটি বাড়ি ঘিরে রাখে ঢাকার কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্র্যান্সন্যাশনাল ইউনিট (সিটিটিসি)। কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ইউনিট ও পুলিশ সদর দফতর এই যৌথ অভিযান পরিচালনা করছে।

আস্তানা দুইটির মধ্যে একটি হলো মাধবদীর গাংপাড় এলাকার আফজাল হাজির ‘নিলুফা ভিলা’ নামে একটি সাত তলা ভবন। অপরটি হলো শেখেরচরের ভগীরথপুর এলাকার চেয়ারম্যান বাড়ি সড়কে ব্যবসায়ী বিল্লাল মিয়ার পাঁচ তলা ভবন।

অপরদিকে মাধবদীর গাংপাড়ের বাড়িটি এখনো পুলিশ ঘেরাও করে রেখেছে। বাড়ির ভিতরে থাকা সন্দেহভাজন জেএমবি সদস্যদের আত্মসমর্পণের আহবান জানানো হচ্ছে।

সোমবার রাত ৯টার পর থেকে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে মাধবদী ও শেখেরচর এলাকার দুটি বাড়ি ঘেরাও করে পুলিশ সদর দপ্তরের এলআইসি শাখা, ডিএমপির কাউন্টার টেররিজম ইউনিট ও নরসিংদী জেলা পুলিশের সমন্বিত দল।

এদিকে পুলিশের মহাপরিদর্শক জাবেদ পাটোয়ারী, ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন, নরসিংদী জেলা প্রশাসক সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন, পুলিশ সুপার সাইফুল্লাহ আল মামুন ও সিভিল সার্জন ডা. হেলাল উদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।