Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৪:০২ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ১৫ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড
জাতীয় রাজস্ব বোর্ড

নতুন ৫ লাখ করদাতার সন্ধানে এনবিআর

আয়কর প্রদানে সক্ষম ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে চিহ্নিত করে কর ভিত্তি সম্প্রাসারণের লক্ষ্যে চলতি ২০১৫-২০১৬ অর্থ বছরে ৫ লাখ নতুন করদাতার সন্ধানে সারা দেশে আয়কর জরিপ কার্যক্রম শুরু করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।
বুধবার নতুন করদাতার সন্ধানে পরিচালিত জরীপ কার্যক্রমের অংশ হিসেবে কর অঞ্চল-৪ ঢাকার অদূরে কেরাণীগঞ্জে স্থানীয় কমিউনিটি সেন্টারে ‘করনেট সম্প্রসারণ ও করদাতা উদ্বুদ্ধকরণ সভা-২০১৫’ আয়োজন করে।
কর অঞ্চল-৪, ঢাকার কর কমিশনার মো. আলমগীর হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জনাব নসরুল হামিদ।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে এনবিআর সিনিয়র সদস্য গ্রেড-১ (শুল্ক নীতি) মো: ফরিদ উদ্দীন,ঢাকা বিভাগের কমিশনার মো: জিল্লার রহমান, এনবিআর সদস্য (কর জরীপ ও পরিদর্শন) মো: লোকমান চৌধুরী ও সদস্য (ট্যাক্সেস লিগ্যাল এন্ড এনফোর্সমেন্ট) ড. মাহবুবুর রহমান,পুলিশের ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি এস এম মাহফুজুল হক নুরুজ্জামান, কেরাণীগঞ্জ উপজেলার চেয়ারম্যান মো: শাহিন আহমেদ প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।
স্থানীয় ব্যবসায়ী ও জনগণের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত এ সভায় নতুন করদাতাগণকে নিবন্ধনের সনদ তুলে দেন প্রতিমন্ত্রী।
এ সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে নসরুল হামিদ বলেন, ১৬ কোটি মানুষের মধ্যে নিবন্ধিত করদাতার সংখ্যা প্রায় ১৮ লাখ হলেও প্রকৃত আয়কর প্রদান করেন প্রায় ১২ লাখ।দেশের অনেকে আয়কর প্রদানে সক্ষম হলেও নিবন্ধিত করদাতা হিসেবে কোন আয়কর প্রদান করেন না। দেশের কাঙ্খিত উন্নয়ন ও মানুষের মৌলিক চাহিদা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে দেশের মানুষকে কর প্রদানে এগিয়ে আসার জন্যতিনি আহবান জানান।
প্রতিমন্ত্রী জানান,কেরাণীগঞ্জের উন্নয়নের জন্য সরকার বিগত দুই বছরে কমপক্ষে ১০০ কোটি টাকা ব্যয় করেছে কিন্তু বিনিময়ে ৮ কোটি টাকা কর দেয়া হয়েছে। তিনি আশা করেন অচিরেই এই করের পরিমান কয়েকগুণ হবে। তিনি বলেন, সারা বিশ্ব থেকে বাংলাদেশে বিনিয়োগের আগ্রহ নিয়ে বিনিয়োগকারীগণ আসছেন। ঢাকা থেকে মাওয়া সেতু পর্যন্ত ফ্লাইওভার হবে। এ উন্নয়ন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে অর্থ যোগান দেওয়ার জন্য তিনি সকলকে অনুরোধ করেন।
এনবিআর সিনিয়র সদস্য গ্রেড-১ (শুল্ক নীতি) মো: ফরিদ উদ্দীন বলেন,এনবিআর বর্তমান সরকারের শেষ মেয়াদে অর্থাৎ ২০১৮-২০১৯ সালে সক্রিয় করদাতার সংখ্যা বর্তমানে ১২ লাখ থেকে ৩০ লাখে উন্নীত করার লক্ষ্যে নিরলস কাজ করছে।এর অংশ হিসেবে বর্তমান বছরে সারা দেশে ৫ লাখ নতুন করদাতা চিহ্নিত করতে আয়কর বিভাগ কাজ করছে বলেও তিনি জানান।
ঢাকা বিভাগের কমিশনার মো: জিল্লার রহমান তাঁর বক্তব্যে সরকারের জনকল্যানমূখী উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড অব্যাহত রাখার সুবিধার্থে এবং একটি আধুনিক উন্নত রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় সকলের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে প্রত্যেকের নাগরিক দায়িত্ব সুচারূরূপে পালন করা ও আইনগত বিধান অনুযায়ী রাজস্ব প্রদান করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
সভায় ধনী-দরিদ্রের বৈষম্য হ্রাস ও আত্ম-মর্যাদাশীল রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সরকারের রাজস্ব প্রদানে এগিয়ে আসার জন্য দেশবাসীকে অনুরোধ জানান ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি এস এম মাহফুজুল হক নুরুজ্জামান।
কেরাণীগঞ্জ উপজেলার চেয়ারম্যান মো: শাহিন আহমেদ প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করার লক্ষ্যে সকলকে আয়কর প্রদানে আহ্বান জানান।
সভাপতির বক্তব্যে কর অঞ্চল-৪, ঢাকার কর কমিশনার মো: আলমগীর হোসেন আয়কর প্রদানে সক্ষম ব্যক্তিগণকে করদাতা হিসেবে নিবন্ধিত হয়ে আয়কর প্রদানের জন্য সকলকে অনুরোধ করেন।