ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৫:৩৭ ঢাকা, রবিবার  ২২শে জুলাই ২০১৮ ইং

অভিনেত্রী রাজশ্রী দেশপাণ্ডে
যাঁরা এ কাজ করছেন, তাঁদের রুচি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন রাজশ্রী। ছবি: ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে।

নগ্ন দৃশ্যের অভিনয় চলে গেল পর্ন সাইটে, বিব্রত রাজশ্রী

চিত্রনাট্যে ছিল বোল্ড সিন। অভিনেত্রী তাতে পারফর্ম করেছেন। কিন্তু তার পরই সেই দৃশ্য নাকি সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে চলে গিয়েছে পর্ন ওয়েবসাইটে। মুহূর্তে বদলে যায় সেই অভিনেত্রীর দৈনন্দিন জীবনযাপন। ‘আপনি কি পর্ন তারকা?’ ক্রমাগত এই মেসেজে ভরে যায় তাঁর ইনবক্স।

এ ঘটনা বাস্তবের। ভুক্তভোগী ‘স্যাক্রেড গেমস’-খ্যাত অভিনেত্রী রাজশ্রী দেশপাণ্ডে।

ইদানীং নেটফ্লিক্সের শো ‘সেক্রেড গেমস’ উঠে এসেছে শিরোনামে। নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকি এবং রাজশ্রী অভিনীত ‘সেক্রেড গেমস’ সম্প্রতি রাজনৈতিক মহলেরও আক্রমণের কেন্দ্রে ছিল। কারণ, কনটেন্টে রাহুল গাঁধীর বিরুদ্ধে কটূক্তি করা হয়েছে বলে দাবি করেছিল কংগ্রেস। সে কারণেই জনৈক প্রদেশ কংগ্রেস নেতা নেটফ্লিক্স কর্তৃপক্ষ, ‘সেক্রেড গেমস’-এর পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপ এবং অভিনেতা নওয়াজ সিদ্দিকির বিরুদ্ধে দিন কয়েক আগেই গিরিশ পার্ক থানায় এফআইআর দায়ের করেছেন। আর এ বার আক্রমণের লক্ষ্যে রাজশ্রী।

আসল ঘটনাটি ঠিক কী? কেন রাজশ্রীকে কোণঠাসা হতে হচ্ছে?

রাজশ্রীর অভিযোগ, ‘সেক্রেড গেমস’-এ লাভ মেকিং সিন রয়েছে। তিনি সেই দৃশ্যে অভিনয় করার পর আলাদা করে ওই দৃশ্য নিয়ে পর্ন ওয়েবসাইটে দিয়ে দেওয়া হয়েছে। আর তার পর থেকেই নাকি তিনি ক্রমাগত মেসেজ পাচ্ছেন, ‘আপনি কি পর্ন তারকা?’

সম্প্রতি ‘স্পটবয়ই’-কে দেওয়া সাক্ষাত্কারে রাজশ্রী বলেন, ‘‘সেক্রেড গেমস’-এ লাভ মেকিং সিনে অভিনয় করেছি। কিন্তু তার পরই আমি দেখলাম ঠিক ওই ছবিগুলোই হোয়াটস্‌অ্যাপে ঘুরছে। কোলাজ তৈরি করে লেখা হয়েছে, ‘হট ইন্ডিয়ান অ্যাকট্রেস উইথ মঙ্গলসূত্র’। পর্ন সাইটেও দেওয়া হয়েছে। এর পর থেকেই এমন সব মেসেজ পাচ্ছি, যেখানে বলা হচ্ছে আমি পর্নস্টার! কিছু কিছু কমেন্ট খুবই খারাপ। শুটিংয়ের আগে অনুরাগ জানতে চেয়েছিল, আমি কতটা কমফর্টেবল। আমার অস্বস্তি থাকলে ও শুট করত না। এখন এগুলো ইগনোর না করে আর কী করতে পারি?’’

রাজশ্রী জানিয়েছেন, এ ধরনের দৃশ্যে অভিনয় করতে তাঁর অস্বস্তি হয়নি। এটা তিনি আগেও করেছেন। চিত্রনাট্য পড়ে তিনি কনভিন্স হয়েছিলেন। সে কারণেই ‘সেক্রেড গেমস’-এর ওই দৃশ্য নিয়ে তাঁর কোনও আপত্তি ছিল না। কিন্তু তার পরের এই ঘটনায় তিনি স্তম্ভিত। খবর আনন্দবাজারের।

রাজশ্রীর কথায়, ‘‘এই সব দৃশ্যে অভিনয় নিয়ে ব্যক্তিগত জীবনে আমার স্বামীরও কোনও আপত্তি নেই। ও বলে, যদি তুমি মনে কর চিত্রনাট্যের প্রয়োজনে নগ্ন হতে হবে সেই সিদ্ধান্ত তোমার। তার জন্য আমার অনুমতি নেওয়ার প্রয়োজন নেই। আমি এই স্পেসটা পেয়ে খুশি।’’ কিন্তু অভিনয়ের পরবর্তী ঘটনার প্রতিঘাতে তিনি বিরক্ত।

এর আগে মালয়লম ছবি ‘সেক্সি দুর্গা’ বা প্যান নলিনের ‘অ্যাংরি ইন্ডিয়ান গডেস’-এ রাজশ্রীর অভিনয় দেখেছেন দর্শক। তাঁকে সাহসী দৃশ্যে এর আগেও দেখা গিয়েছে। তবে অনস্ক্রিন কোনও দৃশ্য নিয়ে এ ভাবে পর্ন সাইটে ছড়িয়ে দেওয়া কি আইনসম্মত? যাঁরা এ কাজ করছেন, তাঁদের রুচি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন রাজশ্রী। শুধু তিনিই নন, এ ধরনের সমস্যার মুখে কম-বেশি ইন্ডাস্ট্রির অনেক অভিনেত্রীই পড়েন। কিন্তু রাজশ্রীর মতো প্রকাশ্যে শেয়ার করার সাহস দেখান না অনেকেই।