Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ১০:০৮ ঢাকা, বুধবার  ১৪ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

দেশে গৃহযুদ্ধের আশঙ্কা করছেন বি.চৌধুরী

Like & Share করে অন্যকে জানার সুযোগ দিতে পারেন। দ্রুত সংবাদ পেতে sheershamedia.com এর Page এ Like দিয়ে অ্যাক্টিভ থাকতে পারেন।

 

সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেছেন, সংলাপই বর্তমান সংকট থেকে উত্তরণের একমাত্র পথ। এর কোনো বিকল্প নেই। সংলাপ যদি না হয়, তাহলে কিছুদিন পরে আর কোনো পক্ষের পিছু হটার কোনো সুযোগ থাকবে না। এর পরিণাম হবে দেশে গৃহযুদ্ধ; যা দেশের কোনো মানুষ চায় না।
শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে দেশপ্রেমিক নাগরিক পার্টি আয়োজিত ‘চলমান রাজনৈতিক সংকট নিরসনে জাতীয় সংলাপ সময়ের দাবি’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় সাবেক রাষ্ট্রপতি এসব কথা বলেন।
‘মানুষ পুড়িয়ে মারা ইসলামের আইনে নেই’- প্রধানমন্ত্রীর এই বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় বদরুদ্দোজা চৌধুরী প্রশ্ন রেখে বলেন, কারা মানুষ পুড়িয়ে মারছে?
অনেক ঘটনার সঙ্গে সরকার ও আওয়ামী লীগও জড়িত। কে বা কারা মানুষ মারার কাজে জড়িত তা খুঁজে বের করতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিতে প্রধান বিচারপতির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।
বিকল্পধারার প্রেসিডেন্ট বলেন, সংলাপের আহ্বান জানানোর প্রথম দায়িত্ব সরকারের। খালেদা জিয়াকেও প্রস্তুত থাকতে হবে এবং ঘোষণা দিতে হবে যে, তিনিও সংলাপ চান।
তিনি বলেন, যারা  প্রধানমন্ত্রীকে পরামর্শ দিচ্ছেন, তারা সমস্যাকে দীর্ঘায়িত করে নিজেদের সুবিধা আদায় করতে চান। তারা বর্তমান সঙ্কটকে কাজে লাগিয়ে আরো বড় সঙ্কট  তৈরি করতে চান।
বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, সারাবিশ্বে রাজনৈতিক ভাষা হলো সংলাপ। তাই শিগগির আওয়ামী লীগ ও বিএনপিকে সংলাপে বসতে হবে।
‘অভিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছনো না পর্যন্ত আন্দোলন চলবে’ বিএনপি চেয়ারপারসনের এমন বক্তব্যের সঙ্গে সম্মতি প্রকাশ করে তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার বক্তব্যে স্পষ্ট। এই বক্তব্যে কোনো কিন্তু নেই।
প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, জনগণের মনের ভাষা না বুঝে আপনি রাজনৈতিক অপরাধ করেছেন। তাই এখনো সময় আছে জনগণের মনের ভাষা পড়ুন এবং সংলাপের জন্য তৈরি হন।
১৪ ফেব্রুয়ারি শনিবার চলমান রাজনৈতিক সংকটের বিরুদ্ধে ফুটপাতে দাঁড়িয়ে প্রতিবাদ জানানোর জন্য নগরবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিকল্প ধারা বাংলাদেশের সভাপতি।
দেশপ্রেমিক নাগরিক পার্টির চেয়ারম্যান আহসান উল্লাহ শামীমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন বাংলাদেশ মুসলিম লীগের সভাপতি নুরুল হক মজুমদার।