Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১:০১ ঢাকা, সোমবার  ১৯শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

আইজিপি এ কে এম শহীদুল হক

“দুর্গাপূজায় নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে”

আইজিপি এ কে এম শহীদুল হক বলেছেন, আসন্ন শারদীয় দুর্গাপূজা নিরাপদ ও আনন্দমুখর পরিবেশে উদযাপনের লক্ষ্যে পূজা শুরুর আগ থেকে, পূজা চলাকালিন এবং পূজা পরবর্তি সময়েও পুলিশ ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করছে।
আজ সকালে পুলিশ সদর দফতরের সম্মেলন কক্ষে আইজিপি’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত দুর্গাপূজা উপলক্ষে আইন-শৃঙ্খলা সংক্রান্ত এক সভায় তিনি একথা বলেন।
সভায় বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদ এবং ঢাকা মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
আইজিপি অতীতের যেকোন সময়ের চেয়ে বর্তমানে দেশে চমৎকার সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিরাজ করছে উল্লেখ করেন। তিনি হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজার ভাবগাম্ভীর্য বজায় রেখে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে উদযাপনে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।
তিনি বলেন, প্রতিমা তৈরি, পূজা উদ্যাপন এবং প্রতিমা বিসর্জনসহ দুর্গাপূজার সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ ও অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সতর্ক ও সজাগ থেকে দায়িত্ব পালন করবেন।
কোন মহল যাতে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটাতে না পারে সে ব্যাপারে সতর্ক থাকার জন্য মাঠ পর্যায়ের পুলিশ প্রশাসনকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেয়া হয়েছে উল্লেখ করে আইজিপি বলেন, ঝুঁকিপূর্ণ পূজা মন্ডপে নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
পুলিশ সদর দফতরের এআইজি (কনফিডেন্সিয়াল) মো. মনিরুজ্জামান দুর্গাপূজা উপলক্ষে গৃহিত সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সভাকে অবহিত করেন।
পূজা উদ্যাপন পরিষদ নেতৃবৃন্দ গৃহীত নিরাপত্তা ব্যবস্থায় সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, হিন্দু সম্প্রদায় তাদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান উদযাপনে বরাবরই পুলিশসহ সকল নিরাপত্তা বাহিনীর সহযোগিতা পেয়ে আসছে।
সভায় পূজা উদ্যাপন পরিষদ নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি কাজল দেবনাথ ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট তাপস কুমার পাল, ঢাকা মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির সভাপতি জিতেন্দ্রলাল ভৌমিক ও সাধারণ সম্পাদক নারায়ন সাহা মনি এবং বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের যুগ্ম সম্পাদক নির্মল চ্যাটাজী ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মণীন্দ্র কুমার নাথ।
এছাড়া, র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ, ঢাকা মহানগর পুলিশের কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়াসহ পুলিশ এবং গোয়েন্দা সংস্থার শীর্ষ কর্মকর্তাবৃন্দ সভায় উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, আগামী ১৯ অক্টোবর থেকে দুর্গাপূজার অনুষ্ঠানিকতা শুরু হচ্ছে।