শীর্ষ মিডিয়া

ব্রেকিং নিউজ

রাত ১২:৩০ ঢাকা, সোমবার  ১৭ই ডিসেম্বর ২০১৮ ইং

দুদক চেয়ারম্যান
দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ,ফাইল ফটো

দুদক সুশাসন প্রতিষ্ঠায় কাজ করছে : দুদক চেয়ারম্যান

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেছেন, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সুশাসনের বিকল্প নেই। দুদক দুর্নীতি দমন, নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধের মাধ্যমে সুশাসন প্রতিষ্ঠায় কাজ করছে।

তিনি আজ দুদক কার্যালয়ে জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচির (ইউএনডিপি) আবাসিক প্রতিনিধি সুদীপ্ত মুখার্জ্জীর নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠককালে এ কথা বলেন।

দুদক চেয়ারম্যান বলেন, বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে কেবল দুর্নীতিই দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির প্রায় দুই থেকে তিন শতাংশ ধ্বংস করছে। কমিশনে দুর্নীতি তদন্তকারী কর্মকর্তার সংখ্যা রয়েছে মাত্র ৩শ’ থেকে সাড়ে ৩শ’ জন। প্রায় ১৬ কোটি জনসংখ্যার দেশে এ জনবল দিয়ে দুর্নীতি প্রতিরোধ ও দমনের কাজটি সত্যিই কঠিন।

দুর্নীতিকে ভাইরাসের সঙ্গে তুলনা করে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, ‘এই ভাইরাস দমনে এন্টি-ভাইরাস চাই। যে কারণে বিশে^র অন্যান্য দেশের উত্তম চর্চাসমূহ এদেশে ছড়িয়ে দিতে চাই।’

তিনি বলেন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে সংগ্রাম করতে হলে তরুণ প্রজন্ম বিশেষ করে স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের মনে হারিয়ে যাওয়া মূল্যবোধকে প্রোথিত করতে হবে। এ লক্ষ্যে দুদক তরুণ প্রজন্মের জন্য সচেতনতামূলক পোষ্টার, বিভিন্ন শ্লোগান সম্বলিত খাতা এবং জ্যামিতি বক্স দেশব্যাপী ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থীর মাঝে বিতরণ করেছে।

ইউএনডিপি প্রতিনিধি দলের উদ্দেশ্যে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, ‘সরাসরি আপনাদের কাছ থেকে আমাদের আর্থিক সাহায্যের তেমন প্রয়োজন নেই। আমাদের প্রয়োজন উপকরণ। এ সব উপকরণকে দেশব্যাপী দুর্নীতির বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলনে ব্যবহার করতে চাই। এ ছাড়া প্রশিক্ষণ বিশেষ করে সাইবার ক্রাইম, সক্ষমতা বৃদ্ধি এবং দুর্নীতিবিরোধী কার্যক্রমের প্রয়োজনীয়তা নিরুপণ করা কমিশনের জন্য অত্যন্ত জরুরী। এ ব্যাপারে ইউএনডিপি কারিগরি সহযোগিতা দিতে পারে।’

প্রতিনিধি দলের এক প্রশ্নের জবাবে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, গত বছর দুদকের মামলায় সাজার হার ছিল শতকরা ৩৭ ভাগ। এ বছরের সেপ্টেম্বের পর্যন্ত এ হার হয়েছে শতকরা ৫১ ভাগ।

ইউএনডিপি’র আবাসিক প্রতিনিধি সুদীপ্ত মুখার্জ্জী চেয়ারম্যনের বক্তব্যে সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, ইউএনডিপি সুশাসনের ওপর অধিকতর গুরুত্ব দেয়। কমিশনের চলমান কার্যক্রমে তার সংস্থা অবদান রাখতে চায়।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দুদকের মহাপরিচালক ড. মো. শামসুল আরেফিন ইউএনডিপি’র ডেপুটি কান্ট্রি ডিরেক্টর বেরেসফোর্ড ও প্রোগ্রাম এ্যানালিস্ট মাহমুদা আফরোজ।