Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সন্ধ্যা ৭:২৩ ঢাকা, সোমবার  ১৯শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

গভীর সাংবিধানিক সংকটে শ্রীলংকা।
গভীর সাংবিধানিক সংকটে শ্রীলংকা। ছবি: সংগৃহীত।

দুই প্রধানমন্ত্রী নিয়ে সাংবিধানিক সংকটে শ্রীলংকা

কর্তৃত্ববাদী সাবেক প্রেসিডেন্ট মাহিন্দা রাজাপাকসে ও বরখাস্ত প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমসিংহে উভয়ই এখন শ্রীলংকার বৈধ প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দাবি করছেন। এ অবস্থায় সাংবিধানিক সংকটে পড়েছে ভারত মহাসাগরীয় দেশটি।

শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমসিংহকে বরখাস্ত করে সাবেক প্রেসিডেন্ট মাহিন্দা রাজাপাকসেকে নিয়োগ দেন প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপল সিরিসেনা। বিরোধীরা প্রেসিডেন্টের পদক্ষেপকে অসাংবিধানিক বলে ঘোষণা করেছে।

বরখাস্ত হওয়ার পর রনিল সিংহ দাবি করেন, সংসদ ছাড়া অন্য কেউ তাকে বরখাস্ত করতে পারেন না। একই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন ‘টেম্পল ট্রিজ’ ছাড়বেন না বলেও জানান তিনি। দাবি জানান, সংসদের জরুরি অধিবেশন ডেকে তার সংখ্যাগরিষ্ঠতা যাচাই করার। কিন্তু এসবে কর্ণপাত না করে উল্টো সংসদও ভেঙে দেন প্রেসিডেন্ট সিরিসেনা।

কর্তৃত্ববাদী সাবেক প্রেসিডেন্ট মাহিন্দা রাজাপাকসে ও বরখাস্ত প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমসিংহে উভয়ই এখন শ্রীলংকার বৈধ প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দাবি করছেন। এ অবস্থায় সাবিধানিক সংকটে পড়েছে ভারত মহাসাগরীয় দেশটি।

শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমসিংহকে বরখাস্ত করে সাবেক প্রেসিডেন্ট মাহিন্দা রাজাপাকসেকে নিয়োগ দেন প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপল সিরিসেনা। বিরোধীরা প্রেসিডেন্টের পদক্ষেপকে অসাংবিধানিক বলে ঘোষণা করেছে। –ইত্তেফাক

বরখাস্ত হওয়ার পর রনিল সিংহ দাবি করেন, সংসদ ছাড়া অন্য কেউ তাকে বরখাস্ত করতে পারেন না। একই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন ‘টেম্পল ট্রিজ’ ছাড়বেন না বলেও জানান তিনি। দাবি জানান, সংসদের জরুরি অধিবেশন ডেকে তার সংখ্যাগরিষ্ঠতা যাচাই করার। কিন্তু এসবে কর্ণপাত না করে উল্টো সংসদও ভেঙে দেন প্রেসিডেন্ট সিরিসেনা।