ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১২:৫০ ঢাকা, বুধবার  ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

দানবের সাথে মানবের সহ অবস্থান হয় না : ইনু

জাসদ সভাপতি তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, জঙ্গীবাদ, সন্ত্রাসবাদ ও দুর্নীতি বাদ দিয়ে সবুজ ও টেকসই উন্নয়ন করতে হবে। বাংলাদেশকে বাংলাদেশের পথেই এগিয়ে নিতে হবে। এখানে জঙ্গী দানবের কোন স্থান নেই। দানবের সাথে মানবের সহ অবস্থান হয় না।
আজ শুক্রবার সকালে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) খেলার মাঠে বুয়েট এলাইমনাই আয়োজিত গ্রান্ড রিইউনিয়ন ২০১৬ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
বুয়েট এলামনাই এর সভাপতি অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, বুয়েটের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. উকবাল মাহমুদ। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, বুয়েট এলামনাই এর সহ সভাপতি প্রকৌশলী মুনিরুদ্দিন আহমেদ, সেক্রেটারি জেনারেল ড. প্রকৌশলী সাদিকুল ইসলাম ভূইয়া ও বুয়েটের ছাত্রকল্যান পরিদপ্তরের পরিচালক অধ্যাপক প্রকৌশলী মো. দেলোয়ার।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমি একজন প্রকৌশলী হলেও এখন একজন সামাজিক প্রকৌশলী হিসেবে কাজ করছি। প্রকৌশলীদের পেশাগত দায়িত্ব পালনের শেষে তিনি সামাজিক প্রকৌশলী হিসেবে কাজ করার আহবান জানান। তিনি বলেন, পুরানো ধারনা থেকে বেরিয়ে এসে নতুন ধারা সৃষ্টি করতে হবে। এখন সময় এসেছে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নেওয়ার। প্রাকৃতিক ও মানব সৃষ্ট দুর্যোগ দেশের সকল সম্পদ থেকে রক্ষা করতে হবে, এ ক্ষেত্রে প্রকৌশলীদের অগ্রগণ্য ভূমিকা রাখতে হবে।
মন্ত্রী আরো বলেন, বাংলাদেশ যেন বাংলাদেশের পথে থাকে। অসাম্প্রদায়িক শোষণ মুক্ত বাংলাদেশের পথ থেকে সরে না যায় তার দিকে নজর রাখতে হবে। হিন্দু-মুসলমান-বৌদ্ধ-খৃষ্টান পাশাপাশি অবস্থান যেন থাকে। ঈদ, দুর্গাপুজা, বড়দিন-বৌদ্ধপুর্নিমা পালনের পথে যেন সবাই মিলে একসাথে থাকতে পারি সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে।
ইনু বলেন, আমরা গণতন্ত্রের পথে জঙ্গী দানবের উš§াদ দেখছি। তারা আমাদের চিন্তা ও পদ্ধতিতে প্রভাব ফেলছে। রাষ্ট্র ও রাজনীতি থেকে ওই শক্তির প্রভাবকে উপরে ফেলতে হবে। আমাদের দেশে আই.এস, তালেবান, জঙ্গীদের স্থান নেই। জঙ্গী বর্জন করে আমরা উন্নয়নের পথে ধাবিত হবো।
আলোচনা শেষে বুয়েট খেলার মাঠে প্রধান অতিথি বেলুন উড়িয়ে দিন ব্যাপি অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিক উদ্ভোধন করেন। এলামনাই অনুষ্ঠানে বুয়েটের ১৯৫১ ব্যাচের ছাত্র তত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ইমাম উদ্দিন চৌধুরীসহ প্রধান প্রকৌশলীরা উপস্থিত ছিলেন।