ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৬:১১ ঢাকা, শুক্রবার  ২১শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

দর্জি নিখিল হত্যায় জামায়াত নেতাসহ আটক ৩

টাঙ্গাইলের গোপালপুরে দর্জি  নিখিল জোয়ার্দ্দারকে (৫৯) কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসেবে জামায়াত নেতাসহ তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ। রোববার সকালে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

আটক ব্যক্তিরা হলেন গোপালপুর  পৌর  জামায়াতের সেক্রেটারি বাদশা মিয়া, আলমনগর কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ আমিনুল ইসলাম এবং ঝন্টু মিয়া।

শনিবার রাতে নিহত নিখিলের স্ত্রী আরতি জোয়ার্দ্দার বাদী হয়ে গোপালপুর থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

গোপালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গণমাধ্যমকে মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, নিহতের স্ত্রী শনিবার রাতে অজ্ঞাত ৩ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন।

এদিকে নিখিল হত্যার দায় স্বীকার করেছে জঙ্গিগোষ্ঠি ইসলামিক স্টেট (আইএস)। শনিবার জঙ্গি তৎপরতা পর্যবেক্ষণকারী ওয়েবসাইট সাইট ইন্টেলিজেন্স এ খবর দিয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)- কে অবমাননার দায়ে নিখিল জোয়ার্দ্দারকে হত্যা করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, শনিবার বেলা সাড়ে দুপুর ১২টার দিকে নিখিল চন্দ্র ডুবাইল বাজারস্থ নিজ বাড়ির সামনে তার টেইলার্সে কাজ করছিলেন। এ সময় মোটরসাইকেলে তিনজন যুবক এসে নিখিলকে দোকান থেকে টেনে বের করে এলোপাতাড়ি কোপাতে শুরু করে। মাথা ও গলায় কুপিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে হামলাকারীরা সুতী কালিবাড়ী সড়ক দিয়ে মোটরসাইকেল নিয়ে পালিয়ে যায়।

এ সময় তারা ঘটনাস্থলে একটি ব্যাগ ফেলে যায়। ব্যাগটিতে কয়েকটি ককটেলসদৃশ বস্তু ছিল।

নিখিল ওই গ্রামের নলিন জোয়ার্দ্দারের ছেলে। মহানবীকে (সা.) কটূক্তি করার অভিযোগে ২০১২ সালে দায়ের একটি মামলার আসামি ছিলেন তিনি। ওই মামলায় নিখিল তিন মাস কারাগারে ছিলেন।

মোহাম্মদকে (সা.) নিয়ে কটূক্তি করার অভিযোগ তুলে নিখিলকে পিটুনি দিয়ে পুলিশে দিয়েছিল এলাকাবাসী।